লড়াই শেষ! নিমতায় বিজেপি কর্মীর মায়ের মৃত্যু! টুইটে শোকপ্রকাশের পাশাপাশি বাংলার নারী সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন শাহের

লড়াই শেষ! নিমতায় বিজেপি কর্মীর মায়ের মৃত্যু! টুইটে শোকপ্রকাশের পাশাপাশি বাংলার নারী সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন শাহের
লড়াই শেষ! নিমতায় বিজেপি কর্মীর মায়ের মৃত্যু! টুইটে শোকপ্রকাশের পাশাপাশি বাংলার নারী সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন শাহের

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ অবশেষে দীর্ঘ এক মাসের লড়াই শেষ! মারা গেলেন নিমতার পাটনা ঠাকুরতলার বিজেপি কর্মীর বৃদ্ধা মা শোভা মজুমদার। রবিবার গভীর রাতে নিজের বাড়িতেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। শুরু থেকেই এই ঘটনায় অপরাধীর কাঠগড়ায় দাঁড় করানো হয়েছে রাজ্যের শাসকদলকে।

এবার এই ঘটনায় তৃণমূলের দিকে আঙুল তুলে সুবিচারের দাবি জানিয়েছে বিজেপি নেতৃত্ব। যদিও তৃণমূলের দাবি, ওই বৃদ্ধা অসুস্থ ছিলেন, শারীরিক অসুস্থতার কারণেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে। এর পিছনে কোনওভাবেই তৃণমূল জড়িত নয়। যদিও বিজেপি সেই দাবি মানতে নারাজ। উল্লেখ্য, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি উত্তর দমদম পুরসভার ৬ নং ওয়ার্ডের নিমতা পাটনা ঠাকুরতলার বাসিন্দা শোভা মজুমদারকে মারধরের অভিযোগ ওঠে তৃণমূল কর্মীদের বিরুদ্ধে।

তবে, বাংলায় নির্বাচনের আবহে নিমতার এই বৃদ্ধার মৃত্যু রাজ্য-রাজনীতিতে নয়া মাত্রা যোগ করল। সকালেই মৃতার বাড়িতে চলে যান উত্তর দমদমের বিজেপি প্রার্থী অর্চনা দাস। বিচারের দাবিতে মরদেহ নিয়ে বের হয় মিছিল। চলে পথ-অবরোধ। বৃদ্ধার মৃত্যুর ঘটনার পর সিবিআই তদন্তের দাবিতে অনড় বিজেপি নেতৃত্ব।

এদিকে আজ বৃদ্ধার মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ টুইটে লিখেছেন, ‘টিএমসির গুন্ডাদের নির্মম অত্যাচারে আজ বাংলার কন্যা শোভা মজুমদার মহাশয়ার মৃত্যুতে আমি গভীরভাবে শোকাহত। এই পরিবারের গভীর ক্ষত আর ব্যথা দীর্ঘদিন মমতা দিদিকে বিদ্ধ করবে। হিংসামুক্ত ভবিষ্যত গড়তে, বাংলার মা-বোনেদের জন্য সুরক্ষিত রাজ্য গড়তে বাংলা লড়াই করবে।’

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পাশাপাশি জেপি নাড্ডা, অমিত মালব্য, অরবিন্দ মেননদেড় মতো বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বরাও টুইটে মমতা সরকারের আমলে বাংলায় নারী নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। সর্বভারতীয় বিজেপি সভাপতি জেপি নাড্ডা টুইট করে বলেন যে, ‘নিমতার বৃদ্ধ ‘মা’ শোভা মজুমদারের আত্মার শান্তি কামনা করি। ছেলে গোপাল মজুমদার বিজেপি করার জন্য আজ তাঁকে প্রাণ দিতে হোলো। বিজেপি এই বলিদান কে সর্বদা মনে রাখবে। ইনিও বাংলার ‘মা’ ছিলেন ইনিও বাংলার ‘মেয়ে’ ছিলেন। বিজেপি সবসময় বাংলার মা ও মেয়েদের সুরক্ষার জন্য লড়াই করবে।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি রাতে কিছু দুষ্কৃতীরা উত্তর দমদমের নিমতার পাটনা ঠাকুরতলার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা আক্রান্ত বৃদ্ধার ছেলে বিজেপি কর্মী গোপাল মজুমদারের অভিযোগ, কয়েকজন তৃণমূল কর্মী তাঁদের বাড়িতে জোর করে ঢুকে পড়ে। বাড়িতে ঢুকে তাঁকে মারধর শুরু করে। বাধা দিতে গেলে তাঁর মাকেও মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। মারের চোট মুখ ফুলে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন শোভা মজুমদার।

এই ঘটনার পর এক সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থাকে অসুস্থ বৃদ্ধা শোভা মজুমদার জানিয়েছিলেন, ‘‌তৃণমূলের লোকজন আমার ছেলেকে মারধর করেছে। আমাকে ঘাড় ধাক্কা দিয়েছে। আমাকে খুব মেরেছে ওরা। এই অবস্থা দেখেও ওরা আমায় ছাড়েনি।’

তারপরেই বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী ও অর্জুন সিং- এর তৎপরতায় কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ওই বৃদ্ধাকে। কিছুদিন আগেই বাড়ি ফিরে আসেন তিনি। এরপর আর আজ ভোরেই মৃত্যু হয় ওই মহিলার।

অভিযোগ উঠেছিল স্থানীয় তৃণমূল সদস্যদের বিরুদ্ধে। ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই রাজ্যজুড়ে নিন্দার ঝড় বয়ে যায়। প্রতিবাদে সোচ্চার হয় বিজেপি। এদিকে তৃণমূল নিমতার বৃদ্ধার মৃত্যু নিয়ে সংকীর্ণ রাজনীতির অভিযোগ তুলেছে বিজেপি শিবিরের বিরুদ্ধে।

এই ঘটনায় দলের সঙ্গে যোগ অস্বীকার করে তৃণমূল। ঘটনার পরেই টুইট করে তৃণমূল কংগ্রেসের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান যে, ‘এর সঙ্গে দলের যোগ নেই। পারিবারিক বিবাদের জেরে ঘটেছে ঘটানাটি। উল্লেখ্য, নিমতায় ৮৫ বছরের বৃদ্ধাকে মারধরের ঘটনায় ৫ জনের বিরুদ্ধে আগেই চার্জশিট দিয়েছে ব্যারাকপুর সিটি পুলিস। অভিযুক্তরা সকলেই আদালতে আত্মসমর্পণ করেছে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.