‘বিদ্যুৎ চাল’-এ নির্বাচনী বৈতরণী পারের চেষ্টা কেজরিওয়ালের! নির্বাচনমুখী উত্তরাখণ্ডেও একই চাল আপ প্রধানের

‘বিদ্যুৎ চাল’-এ নির্বাচনী বৈতরণী পারের চেষ্টা কেজরিওয়ালের! নির্বাচনমুখী উত্তরাখণ্ডেও একই চাল আপ প্রধানের
‘বিদ্যুৎ চাল’-এ নির্বাচনী বৈতরণী পারের চেষ্টা কেজরিওয়ালের! নির্বাচনমুখী উত্তরাখণ্ডেও একই চাল আপ প্রধানের

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ চালটা অনেক পুরনো। দিল্লির ক্ষমতায় আসার আগেও তিনি এই চালেই নির্বাচনী প্রচার সেরেছেন। যদিও ক্ষমতায় এসে তিনি কথাও রেখেছেন। আর এবার সেই একই চালে বাজিমাত করতে চাইছেন আম আদমি পার্টির নেতা অরবিন্দ কেজরিওয়াল। যা দেখে, রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের অধিকাংশ বলছেন, কার্যত বিদ্যুৎ চালেই নির্বাচনে বাজিমাত করতে চাইছেন আপ প্রধান।

এর আগে পাঞ্জাবে গিয়ে বিদ্যুৎ সংকটের কথা তুলে ধরেছিলেন কেজরিওয়াল। শুধুমাত্র বিদ্যুতের সমস্যার কথা তুলে ধরাই নয়, পাঞ্জাব সফরে গিয়ে রীতিমতো নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিও দিয়ে এসেছেন। তিনি বলেছেন, তাঁর সরকার সেখানে ক্ষমতায় এলে, একটা বড় অংশের বিদ্যুতে ভর্তুকি পাওয়া যাবে।

এবার নির্বাচনমুখী উত্তরাখণ্ডেও একই কায়দায় খেলছেন তিনি। সেখানে কেজরিওয়াল ৩০০ ইউনিট পর্যন্ত বিদ্যুতে ভর্তুকি ও লোডশেডিং বন্ধ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। এর পাশাপাশি বিজেপি এবং কংগ্রেসের সমালোচনাও করেছেন। অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেন, ‘বিজেপি ও কংগ্রেস এখানে গদির জন্য লড়াই করছে। কে উত্তরাখণ্ডের উন্নতির কথা ভাববে?’ মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে আক্রমণ শানিয়ে তাঁর প্রশ্ন, ‘উৎপাদক রাজ্য হয়েও কেন এখানে এতো বিদ্যুতের দাম বেশি হবে?’

অন্যদিকে, বিদ্যুতে ভর্তুকি দেওয়ার বিষয়ে অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেছেন, ‘এটা নির্বাচনের জুমলা নয়। আমরা ৩০০ ইউনিট পর্যন্ত বিদ্যুতে ভর্তুকি দেব।’ তিনি আরও দাবি করেছেন যে, তাঁর সরকার ক্ষমতায় এলে, ৫ বছর পর্যন্ত কোনও কর বাড়বে না। এই নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন আপ প্রধান। উল্লেখ্য, ২০২২ সালে উত্তরাখণ্ডে নির্বাচন। তার আগে একাধিকবার মুখ্যমন্ত্রীর পরিবর্তন দেখেছে সে রাজ্য। অবশেষে ৪ মাসের মধ্যে তৃতীয় মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন পুষ্কর সিং ধামি। ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াতের পর উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন তিরথ সিং রাওয়াত।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, নিয়ম মোতাবেক, যে কোনও মন্ত্রীর পদে বসার জন্য বিধায়ক হওয়া প্রয়োজন। অথবা মন্ত্রিত্ব গ্রহণের ৬ মাসের মধ্যে তাঁকে উপ-নির্বাচনে জয়ী হতে হবে। ১০ সেপ্টেম্বর সেই ছয় মাসের মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল তিরথের। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির জন্য উপ-নির্বাচন অনিশ্চিত হওয়ায় এবং একাধিক বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে মেয়াদ শেষের আগেই, মুখ্যমন্ত্রীত্ব থেকে পদত্যাগ করেছেন তিনি। সেই জায়গায় বর্তমানে মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন পুষ্কর সিং ধামি। এরপর নির্বাচনে কে উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হবেন, তার উত্তর সময়ই বলবে।