ব্লক পঞ্চায়েতের নির্বাচনে দলের বড় জয়ের সব কৃতিত্ব যোগী আদিত্যনাথেরই, প্রশংসা মোদী-অমিত-নাড্ডা’র

ব্লক পঞ্চায়েতের নির্বাচনে দলের বড় জয়ের সব কৃতিত্ব যোগী আদিত্যনাথেরই, প্রশংসা মোদী-অমিত-নাড্ডা’র
ব্লক পঞ্চায়েতের নির্বাচনে দলের বড় জয়ের সব কৃতিত্ব যোগী আদিত্যনাথেরই, প্রশংসা মোদী-অমিত-নাড্ডা’র

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ সামনের বছরই উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচন। তার আগে নিজেদের ঘর গোছাতে ব্যস্ত গেরুয়া শিবির। বিধানসভা নির্বাচনের আগে উত্তরপ্রদেশে বিজেপির আত্মবিশ্বাস কয়েকগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে জেলা পঞ্চায়েত (জেলা পরিষদ) নির্বাচনের ফলাফল। এবার উত্তরপ্রদেশ ব্লক পঞ্চায়েতের চেয়ারম্যান নির্বাচনেও বড় সাফল্য পেয়েছে বিজেপি। এই নির্বাচনে দলের ভাল ফলের পুরো কৃতিত্বটাই উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকেই দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা।

শনিবার রাজ্যের ৪৭৬টি ব্লকের চেয়ারম্যান পদের নির্বাচন হয়। এর মধ্যে ৩৪৯টি পদে কোনও প্রতিদ্বন্দ্বিতাই হয়নি। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজেপি জিতে নিয়েছে ৩৩৪টি। অন্যদিকে, অখিলেশ যাদবের সমাজবাদী পার্টির ঝুলিতে মোট ৭ টি আসন। জেলা পরিষদের নির্বাচনের পর, আবারও এই নির্বাচনে বড় ধাক্কা খেল অখিলেশ যাদবের দল। উল্লেখ্য, মুলায়ম এবং অখিলেশের নির্বাচনী কেন্দ্র কনৌজের সবকটি ব্লক পঞ্চায়েতের দখল নিয়েছে বিজেপি।

এই নির্বাচনের ফল প্রকাশের পরই শনিবার রাতেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী টুইট করে বলেন, ‘উত্তরপ্রদেশের ব্লক প্রধান নির্বাচনে বিজেপি দারুণ ফল করেছে। এই জয়ের পিছনে প্রধান কাণ্ডারি হলেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তার নীতির কারণেই এই জয়লাভ সম্ভব হয়েছে। দলের সমস্ত কর্মীরাই এই জয়ের জন্য প্রশংসার ভাগীদার।’

প্রধানমন্ত্রীর পাশাপাশি শুভেচ্ছা জানান কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহও। তিনি টুইট করে শুভেচ্ছা জানান উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী টুইট করে লেখেন যে, ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মার্গদর্শনে যোগী আদিত্যনাথ সরকারের জনকল্যাণমূলক নীতিগুলির উপর সাধারণ মানুষের আস্থাই এই জয়ের কারণ। অনেক অভিনন্দন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, দলের সকল পরিশ্রমী কর্মীদের।’

প্রধানমন্ত্রী এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পাশাপাশি এদিন উত্তরপ্রদেশের স্থানীয় নির্বাচনে এই বড় জয়ের জন্য যোগী আদিত্যনাথকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডাও।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে উত্তরপ্রদেশের পরিস্থিতি বেশ জটিল হয়ে ওঠে। গঙ্গায় মৃতদেহ ভেসে আসা নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হতেই, কেন্দ্রীয় শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে কিছুটা হলেও দূরত্ব তৈরি হয় মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের। তবে, আগামী বছরে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের কথা বিবেচনা করেই প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে একাধিক বৈঠকের মাধ্যমে সেই দূরত্ব মিটিয়ে নেওয়া হয়। দলের পক্ষ থেকেও জানানো হয়, আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হবেন যোগী আদিত্যনাথই। বিধানসভা নির্বাচনের বৈতরণী পারের আগেই স্থানীয় নির্বাচনগুলিতে একের পর এক জয়ের মধ্যে দিয়ে ফের একবার যোগী আদিত্যনাথ নিজের সংগঠন, গ্রহণযোগ্যতা ও কর্মদক্ষতারই প্রমাণ দিলেন। যদিও এই জয় নিয়ে বিরোধীদের পক্ষ থেকে একাধিক অভিযোগ উঠছে।

এদিকে বিরোধীদের পক্ষ থেকে এই জয় নিয়েও কারচুপির অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে। বিরোধীদের অভিযোগ, রাজ্যের ক্ষমতায় থেকে তার অপব্যবহার করেছে যোগী সরকার। নিজের প্রভাব খাটিয়ে বিরোধী দলের জয়ী প্রার্থীদেরও নিজের দলের দিকে টানছেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী। তবে, উত্তরপ্রদেশে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের দাবি, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর একের পর এক জনকল্যাণমূলক প্রকল্পের জোরেই ব্লক প্রমুখ নির্বাচনে আশাতীত সাফল্য পেয়েছে বিজেপি।