পিভি সিন্ধুই এখন ভারতের হায়েস্ট পেইড মহিলা অ্যাথলিট

89
Image Source: Google

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ ব্যাডমিন্টন কোর্টের বাইরেও জয়যাত্রা অব্যহত পিভি সিন্ধুর। এ বছরের অগস্টে বিডব্লুএফ ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপে প্রথম ভারতীয় হিসেবে সোনা জিতে নিয়েছিলেন সিন্ধু। গত দু’ বছরেও ওই ইভেন্ট থেকে রুপো উঠে এসেছে তাঁর হাতে। গতবছর অর্থাৎ ২০১৮ সালে অস্ট্রেলিয়াতে আয়োজিত কমনওয়েলথ গেমসে এবং তার আগে ২০১৬ সালের রিও অলিম্পিকসেও রুপো জিতেছিলেন তিনি। এই উজ্জ্বল রেকর্ডের জেরেই অর্জুন পুরস্কার ও পদ্মশ্রী সম্মান পেয়েছেন সিন্ধু।

সিন্ধুর ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট ফার্ম বেসলাইন ভেঞ্চার্সের সহ-প্রতিষ্ঠাতা তথা ডিরেক্টর রামকৃষ্ণণ আর বলেছেন, ‘‘ব্র্যান্ডগুলো আচমকা সিন্ধুকে নিয়ে খুব উৎসাহিত হয়ে পড়ুক সেটা আমরা চাই না। সিন্ধু বাছাই করা ব্র্যান্ডের সঙ্গে বিশ্বাসযোগ্য এবং দীর্ঘমেয়াদি পার্টনারশিপ করতে চান।’’ এই মুহূর্তে এক একটি এনডোর্সমেন্ট থেকে সিন্ধু প্রতিদিন ৬৫-৮৫ লক্ষ টাকা আয় করেন। কিছু ক্ষেত্রে এই অঙ্ক দেড় কোটিও ছুঁয়ে ফেলে। সাম্প্রতিক জয়ের পর তাঁর বর্তমান আয়ের অঙ্কে ৫০-৭০ শতাংশ বৃদ্ধি হবে বলেই মনে করছেন স্পোর্টস কনসালট্যান্টরা। একটি ওয়েবসাইটে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রামকৃষ্ণণ জানিয়েছেন এই মুহূর্তে ভারতের মহিলা অ্যাথলিটদের মধ্যে সিন্ধুর আয়ই সর্বোচ্চ। বেশ কিছু প্রথম সারির ক্রিকেটারের সঙ্গে তুলনা করা যায় তাঁর আয়।

ফোর্বসের মতে, ব্র্যান্ড এনডোর্সমেন্ট থেকে সিন্ধু বছরে আনুমানিক ৩৫ কোটি টাকা রোজগার করেন। ইতিমধ্যেই ব্যাঙ্ক অফ বরোদা, পিএনবি মেটলাইফ, ভাইজ়াগ স্টিল, ব্রিজস্টোন, স্টেফ্রি, মুভ, নোকিয়া, জেবিএল, গাটোরেড ও প্যানাসনিক ব্যাটারির মুখ হিসেবে দেখা গেছে সিন্ধুকে।

আরও পড়ুনঃ  মৃত্যুর আগে শেষ নিশ্বাঃস ফেলছে কংগ্রেসঃ মোদি

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.