পুরীর জগন্নাথ মন্দিরে নয়া রেকর্ড! একদিনেই দান বাক্সে পড়ল সোনা রুপো সহ এই পরিমাণ টাকা

পুরীর জগন্নাথ মন্দিরে নয়া রেকর্ড! একদিনেই দান বাক্সে পড়ল সোনা রুপো সহ এই পরিমাণ টাকা / প্রতীকী ছবি
পুরীর জগন্নাথ মন্দিরে নয়া রেকর্ড! একদিনেই দান বাক্সে পড়ল সোনা রুপো সহ এই পরিমাণ টাকা / প্রতীকী ছবি

পুরীর জগন্নাথ মন্দিরে নতুন রেকর্ড। একদিনেই মন্দিরের দানবাক্সে জমা পড়ল প্রায় ২৮ লক্ষ টাকা। গত শুক্রবার ছিল অনল নবমী। কথিত বিশ্বাস, এই দিনে ভগবান বিষ্ণুকে কোনও কিছু উৎসর্গ করলে তার ফল ভালো হয়। এই দিনে দান করলে দাতার পুণ্য হয়। এই বিশ্বাস থেকেই একদিনে মন্দিরের দানবাক্সে পড়ল ২৮ লক্ষেরও বেশি টাকা। শুধু তাই নয়, প্রচুর পরিমাণ সোনা রুপোও পড়েছে। জানা গিয়েছে, প্রায় সাড়ে পাঁচশো গ্রাম সোনা এবং ষাট গ্রামেরও বেশি রুপো দান হিসেবে পড়েছে বাক্সে।

মন্দির পরিচালনার সঙ্গে যুক্ত এক আধিকারিক জানিয়েছেন, গত দু’ বছরের মধ্যে পুরীর জগন্নাথ মন্দিরের হুন্ডিতে একদিনে এই পরিমাণ অর্থ জমা পড়েনি। মন্দির কর্তৃপক্ষের কথায়, কোভিড-১৯ মহামারী শুরুর পর প্রায় দুই বছরের মধ্যে এটাই সর্বোচ্চ অনুদান। যেহেতু বর্তমানে করোনা বিধি সামান্য শিথিল, তাই দেশ জুড়ে নানা প্রান্ত থেকে ভক্তরা মন্দিরে আসছেন। ফলে অনুদানের পরিমাণও তুলনায় বেশি পড়েছে। জানা গিয়েছে, মন্দিরের পাঁচ জন মিলে প্রণামীর খুচরো আর নোট গোনার সময় প্রায় পাঁচ ঘণ্টারও বেশি পেরিয়ে গিয়েছে।

পুরীর জগন্নাথ মন্দিরে নয়া রেকর্ড! একদিনেই দান বাক্সে পড়ল সোনা রুপো সহ এই পরিমাণ টাকা / প্রতীকী ছবি
পুরীর জগন্নাথ মন্দিরে নয়া রেকর্ড! একদিনেই দান বাক্সে পড়ল সোনা রুপো সহ এই পরিমাণ টাকা / প্রতীকী ছবি

উল্লেখ্য, ১৯৭৫ সালের হুন্ডি আইন অনুযায়ী পুরীর জগন্নাথ মন্দিরের ভিতরে দানের ব্যবস্থা রয়েছে। ‘হুন্ডি’-তে ভক্তরা বেনামে যেকোনও পরিমাণ সামগ্রী দান করতে পারেন। সাধারণ দিনে, ‘হুন্ডি’-তে আড়াই থেকে তিন লক্ষ টাকা নগদ পাওয়া যায়। তবে শুক্রবার ‘অনল নবমী’তে মন্দিরে দান করার বিশ্বাস থেকেই এই রেকর্ড পরিমাণ অর্থ জমা পড়েছে বলে মন্দির কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে।