‘শরীর বেঁচে সিরিয়ালে চান্স’! কাটোয়ার শ্রুতিকে কুৎসিত আক্রমণ, আইনি পথে হাঁটলেন অভিনেত্রী

‘শরীর বেঁচে সিরিয়ালে চান্স’! কাটোয়ার শ্রুতিকে কুৎসিত আক্রমণ, আইনি পথে হাঁটলেন অভিনেত্রী
‘শরীর বেঁচে সিরিয়ালে চান্স’! কাটোয়ার শ্রুতিকে কুৎসিত আক্রমণ, আইনি পথে হাঁটলেন অভিনেত্রী

বংনিউজ ২৪x৭ বিনোদন ডেস্কঃ কাটোয়া থেকে কলকাতার টলিপাড়া, এই জার্নিটা মোটেও সহজ ছিল না। কিন্তু তিনি পেরেছেন। এই ‘তিনি’ আর কেউ নন, ছোট পর্দার এই মুহূর্তের জনপ্রিয় মুখ শ্রুতি দাস। কিন্তু তাঁর এই সাফল্যের সঙ্গে জুটেছে ব্যক্তিগতস্তরে কুৎসিত আক্রমণ। এর আগেও তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় নানাভাবে আক্রমণের শিকার হয়েছেন। কখনও তাঁর গাঁয়ের রং নিয়ে আক্রমণ করা হয়েছে, আবার কখনও বা তাঁর চরিত্র নিয়ে।

আসলে এখন একটু কিছু হলেই মানুষ নানারকম ট্রোল ও কটাক্ষ করতে দেখা যায় নেটিজেনদের। তাদের কাছে এখন মিম বা ট্রোল করা একেবারে সাধারণ ব্যাপার হয়ে গেছে। এসব করার আগে একবার ভাবা হয় না যে, যাঁদের বিরদ্ধে এরকম আক্রমণ করা হচ্ছে, এটা তাঁদের জন্য কতোটা সম্মানহানিকর, এবং তাছাড়া অন্যায় তো বটেই। এই ধরনের আক্রমণ কোনোভাবেই সমীচীন নয়। এই ধরনের ব্যক্তিগত আক্রমণের জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন শ্রুতি, আবেদন করেছেন, এসব কুৎসিত আক্রমণ না করতে, কখনও খানিক শক্ত ভাষাতেই সাবধান করেছেন ট্রোলকারীদের। তবে, এবার যেভাবে আক্রমণ করা হয়েছে অভিনেত্রীকে, তা শালীনতার সীমা অতিক্রম করে গেছে। এবার অভিনেত্রীর সহ্যের সীমা অতিক্রম করে গেছে। তাই এবার কোনও অনুরোধ-উপরোধ নয়। সোজাসুজি আইনি পথে হাঁটলেন অভিনেত্রী।

অভিনেত্রী শ্রুতি দাস

সম্প্রতি দেশের মাটি ধারাবাহিকে শ্রুতিকে বাদ দেওয়ার দাবি তুলে, সুপর্ণা বোস নামে এক মহিলা সোশ্যাল মিডিয়ায় লেখেন, ‘ফালতু একটা মেয়ে। ওঁকে আমাদের খুব সামনে থেকে দেখা।’ এখানেই শেষ নয়, শ্রুতিকে কমেন্ট বক্সে গালাগালিও দেওয়া হয়। এমনকি তাঁর সম্পর্কে নোংরা অভিযোগও করা হয়।

এরপরেই গোটা ঘটনার স্ক্রিনশট তুলে প্রথমে কলকাতা পুলিশ এবং পরে কলকাতা পুলিশের সাইবার সেল বিভাগে মেইল মারফৎ অভিযোগ দায়ের করেন অভিনেত্রী। ই-মেইলে শ্রুতি লেখেন, ‘ফেসবুকএবং ইনস্টাগ্রামে আমার দুই ভেরিফায়েড প্রোফাইল রয়েছে। সুপর্ণা বোস সরকার নামক ওই মহিলা আমার হোমটাউন কাটোয়ারই বাসিন্দা। স্টার জলসার পেজে তিনি আমাকে উদ্দেশ্যে করে এমন সব মন্তব্য করেছেন, যার বিরুদ্ধে আমি আইনি ব্যবস্থা নিতে চাই।’

সংবাদমাধ্যমে অভিনেত্রী জানিয়েছেন, ‘এটা আজকের ব্যাপার নয়, হয়ে আসছে। আমি অবাক হয়ে যাচ্ছি, আমার নিজের জায়গা কাটোয়ার মানুষ হয়েও ইনি এভাবে আমাকে বলতে পারেন কীভাবে। আমি গোটা ব্যাপারটা সাইবার সেলে জানিয়েছি। আশা রাখছি, খুব শীঘ্রই উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বর্তমানে অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী হলেন শ্রুতি দাস। ‘ত্রিনয়নী’ ধারাবাহিকের মাধ্যমে তিনি টলিপাড়ায় অভিনয়ে পা রাখেন। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই তিনি জনপ্রিয়তাও লাভ করেন, তাঁর অভিনয় দক্ষতায়। তিনি যে শুধু একজন দক্ষ অভিনেত্রী, তা কিন্তু নয়। তিনি একজন দক্ষ নৃত্যশিল্পীও বটে।