অবশেষে কথামতো অমিত শাহের সভাতেই পদ্ম শিবিরে যোগ শিশির অধিকারীর

অবশেষে কথামতো অমিত শাহের সভাতেই পদ্ম শিবিরে যোগ শিশির অধিকারীর / নিজস্ব ছবি
অবশেষে কথামতো অমিত শাহের সভাতেই পদ্ম শিবিরে যোগ শিশির অধিকারীর / নিজস্ব ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ তেমন কোনও লুকোচুরি ছিল না কখনই। শুরু থেকেই বলে এসেছেন তিনি, ছেলে শুভেন্দু যা বলবেন, তাই হবে। আর ছেলেও অনেক আগেই ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছিলেন যে, খুব শীঘ্রই শিশির অধিকারীও বিজেপিতে যোগ দেবেন, শুধু সময়ের অপেক্ষা। সবটাই পূর্বনির্ধারিত ছিল। শুধু সময় মতো সেটার বাস্তব রূপায়ণ বাকি ছিল। এবার সেটাই হল শুধু।

শুভেন্দু অধিকারীর কথামতো এগরায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর সভাতেই বিজেপিতে আনুষ্ঠানিকভাবে যোগ দিলেন কাঁথির বর্ষীয়ান তৃণমূল সাংসদ শিশির অধিকারী। উল্লেখ্য, মাস তিনেক আগে, ১৯ ডিসেম্বর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এই অমিত শাহের সভাতেই পদ্ম পতাকা হাতে তুলে নিয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। ঘাসফুল থেকে পদ্ম শিবিরে যোগ দিয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। আর এবার বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনের ঠিক একেবারে মুখে দলবদল করলেন বর্ষীয়ান রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব শিশির অধিকারী। তিনি বিজেপিতে যোগ দেওয়ার আগে জানিয়েছেন যে, তৃণমূলের থেকে পাওয়া অসম্মান এবং বঞ্চনার কারণেই বিজেপিতে তাঁদের বিজেপিতে যোগ।

গতকাল শিশির অধিকারীর বাড়িতে যান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মনসুখ মান্ডব্য। দু’জনের প্রায় আধঘণ্টা বৈঠক হয় বলে খবর। এই বৈঠকের পরই জানা যায় যে, এগরায় অমিত শাহের সভায় যেতে সম্মত হয়েছেন শিশির অধিকারী। এমনিতেই আজকের রবিবার হাইভোল্টেজ রবিবার ছিল একদিকে প্রধানমন্ত্রী, অমিত শাহের সভা অন্যদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভা। তার মধ্যে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে শিশির অধিকারী যোগের কারণে রাজ্য-রাজনীতিতে উল্লেখযোগ্য দিন হয়ে উঠল আজকের রবিবার, সে বিষয়ে কোনও সন্দেহই নেই।

তৃণমূলের সঙ্গে দুরত্বের শুরুটা করেছিলেন প্রথমে শুভেন্দু অধিকারী। রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী গত নভেম্বরেই মন্ত্রিত্ব, দলের বিধায়ক পদ-সহ যাবতীয় দায়িত্ব থেকে নিজেকে সরিয়ে নেন। আর ১৯ ডিসেম্বর তৃণমূলের সঙ্গে শেষ সম্পর্কটুকুও ত্যাগ করেন গেরুয়া শিবিরে যোগ দিয়ে। অনেক বোঝানোর চেষ্টা করেও কোনও লাভ হয়নি। একইভাবেই শিশির অধিকারীও সেই পথেই হেঁটেছেন। ছেলের প্রতিটি পদক্ষেপে সমর্থন জানিয়েছেন তিনি। এরপরই তাঁকে বয়সের কারণ দেখিয়ে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তৃণমূলের নানা দায়িত্ব থেকে সরানো হয়। সেই থেকেই শুরু।

অন্যদিকে একুশের নির্বাচনে নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিপক্ষে বিজেপির হয়ে লড়াইয়ে শুভেন্দু অধিকারী দাঁড়ালে, শিশির অধিকারী ঘোষণা করেন যে, নন্দীগ্রামে মমতা নয়, জিতবে শুভেন্দুই। প্রয়োজনে তিনি প্রচার করবেন ছেলের হয়ে। এরপরই এটা স্পষ্ট হয়ে যায় যে, আর কোনও বাধা নেই, খুব শীঘ্রই তিনি বিজেপিতে যাচ্ছেন।

আর আজ অমিত শাহের সভায় যোগ দিয়ে, বিজেপিতে যোগ দেওয়ার কথা স্পষ্ট করে জানিয়ে দেন। এর সঙ্গে অমিত শাহের এগরার নির্বাচনী জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন, ‘বাংলার শিক্ষিত বেকারদের জন্য লড়াই করব। আমরা আপনাদের সঙ্গে আছি।’ তিনি আরও বলেন যে, ‘৬০- ৬২ বছরের রাজনৈতিক জীবনে অনেক দায়িত্ব সামলেছি, আজ অনেক দুঃখ নিয়ে দল ছেরেছি। সেই জন্ত্রনার কথা বলতে চাই না।’

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.