রাজ্যশীর্ষ সংবাদ

মারণ ভাইরাসকে “টাফ ফাইট”, করোনা মুক্ত হলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়

কুপোকাত করোনা, দীর্ঘ কয়েকদিনের লড়াই-এর পর আজ করোনা মুক্ত হলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। পর্দার ফেলুদা হারিয়ে দিতেন যে কোনও যড়যন্ত্রকারীকে, রিয়েল লাইফ ফেলুদা হারালেন মারণ ভাইরাসকে।

বুধবার সন্ধ্যেয় বেলভিউ হাসপাতালের মেডিক্যাল বুলেটিন স্বস্তি ফিরিয়ে দিল সৌমিত্র অনুরাগীদের।

তাঁর চিকিৎসক অরিন্দম কর আজ জানান, গত ৪৮ ঘণ্টার তুলনায় সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের শারীরিক অবস্থা আজ অনেকটা স্থিতিশীল। চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন তিনি। এখনও তন্দ্রাচ্ছন্নভাব থাকলেও নিজে থেকেই চোখ খুলছেন। এছাড়াও তাঁর কিডনির কার্যকারিতা, ইউরিন এবং রক্তে অ্যামনিয়ার পরিমাণ মোটের ওপর সবই ঠিকঠাক। হার্ট, ব্লাড প্রেসার, ফুসফুসের ক্রিয়া এখন ভালোর দিকে। মাঝে মধ্যে তাঁকে অক্সিজেন দিতে হলেও তা নেহাত সতর্কতার জন্য। সবশেষে সবথেকে খুশির খবর, তাঁর করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।

হাসপাতাল সূত্রে খবর এদিন সৌমিত্রবাবুর স্নায়ুতন্ত্রের সার্বিক পরীক্ষা হয়েছে। ২ দিন বাদে এই পরীক্ষার রিপোর্ট আসবে। এছাড়াও ডায়ালিসিস রোগীদের শরীরে কোভিড সংক্রমণ রোখার জন্য বিশেষ চিকিৎসা এবং শরীরে করোনার অ্যান্টিবডি তৈরি করতে আইভিআইজি চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে তাঁকে।

প্রসঙ্গত, বিগত কয়েকদিন ধরেই করোনা আক্রান্ত সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় বেলভিউ নার্সিংহোমে ভর্তি রয়েছেন। সেখানে ১৬ জন চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে তাঁর চিকিৎসা চলছে।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় সকাল সাড়ে ১১টা থেকে একটি ফিচার ছবির জন্য শুটিং করছিলেন ভারতলক্ষ্মী স্টুডিয়োয়। দুপুর পৌনে ১টা নাগাদ তিনি শরীর খারাপ লাগছে বলে জানিয়েছিলেন তিনি। সেই সময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন সন্দীপ রায়, সব্যসাচী চক্রবর্তী, পরিচালক অতনু ঘোষ। এরপরেই তাঁর শারীরিক অবস্থা আরও খারাপ হতে থাকে। সেই সময় কোভিড পরীক্ষা হলে রিপোর্ট পজেটিভ আসে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.

Back to top button