পর্দার খলনায়ক, বাস্তবের ‘মসিহা’! সোনু সুদের সম্মানে আস্ত এক বিমান উৎসর্গ স্পাইস জেটের!

পর্দার খলনায়ক বাস্তবের 'মসিহা'! সোনু সুদের সম্মানে আস্ত এক বিমান উৎসর্গ স্পাইস জেটের! / Image Source- Tweeted By @SonuSood
পর্দার খলনায়ক বাস্তবের 'মসিহা'! সোনু সুদের সম্মানে আস্ত এক বিমান উৎসর্গ স্পাইস জেটের! / Image Source- Tweeted By @SonuSood

তিনি রূপোলি পর্দার ‘খলনায়ক’। কিন্তু বাস্তব জীবনে? তিনি যেন ‘ভগবান’! জনসাধারণের কাছে তিনি এক ‘মসিহা’। মানুষের স্বার্থে বারবার ত্রাতার ভূমিকায় দেখা দিয়েছেন তিনি। গত বছরে করোনাকালীন পরিস্থিতিতে লকডাউন চলাকালীন নিজের খরচে বাড়ি ফিরিয়েছেন লাখ লাখ পরিযায়ী শ্রমিককে। রাশিয়া, উজবেকিস্তান, ম্যানিলা এবং আলমাটিতে আটকে থাকা শত শত ভারতীয়কে দেশেও ফিরিয়ে এনেছিলেন। এছাড়াও সুখে-দুঃখে বারবার অসহায় মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন তিনি। নিয়েছেন হাজারও ছাত্র-ছাত্রীর লেখাপড়ার ভার। এতক্ষণে নিশ্চয় বুঝে গিয়েছেন কার কথা হচ্ছে? হ্যাঁ, তিনি বলিউডের অভিনেতা, সোনু সুদ-ই। সম্প্রতি তাঁর মুকুটে যোগ হল আরও একটি পালক।

সোনু সুদের সম্মানে তাঁকে আস্ত একটি বিমান উৎসর্গ করল স্পাইস জেট। স্পাইসজেট বোয়িং ৭৩৭ নামক সেই বিমানটির গোটা গায়ে আঁকা অভিনেতার মুখ, সঙ্গে রয়েছে পরিযায়ীদের দলও! পাশে লেখা, ‘এ স্যালুট টু দ্য সেভিয়ার সোনু সুদ’। এই সম্মানের মাধ্যমে একটি রেকর্ডেও নাম লেখালেন অভিনেতা। তিনিই প্রথম ভারতীয় অভিনেতা, যিনি এই সম্মান পেলেন।

সেই বিমানের ছবি নিজেও শেয়ার করেছেন সোনু। স্বভাবই তিনি বেশ আপ্লুতও বটে। টুইটারে ঘটনাটির ছবি শেয়ার করে তিনি লেখেন, “অসংরক্ষিত টিকিটে মোগা থেকে মুম্বই আসার দিনগুলি মনে পড়ছে। সমস্ত ভালোবাসার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ। আজকের দিনে আমার বাবা-মাকে আরও মিস করছি।” পাশাপাশি তিনি এও লেখেন, ” এটি খুব মিষ্টি এক পদক্ষেপ। আমার জন্য বড় সম্মানের বিষয়। স্পাইস জেট আমাকে এই সম্মান দিয়েছে, আমি খুব গর্ব বোধ করছি। আমার কতটা ভাল লাগছে তা বলে বোঝাতে পারছি না।”

প্রসঙ্গত, অভিনেতাকে সম্মান জানাতে ইতিমধ্যেই তেলেঙ্গানাতে তৈরি হয়েছে আস্ত একটা মন্দির। আন্তর্জাতিক স্বীকৃতিও রয়েছে তাঁর ঝুলিতে। গত বছর সেপ্টেম্বরে, রাষ্ট্রসংঘের শাখা সংগঠন ইউনাইটেড নেশনস ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের তরফে সম্মানিত হন সোনু সুদ। এছাড়াও এসডিজি(সাস্টেনেবল ডেভেলপমেন্ট গোল) স্পেশাল হিউম্যানিটারিয়ান অ্যাকশন অ্যাওয়ার্ডও পেয়েছেন অভিনেতা৷ যদিও এত কিছুর পর নিজেকে ‘মসিহা’ মানতে নারাজ সোনু৷ তাই ‘আই অ্যাম নট আ মসিহা’ নামে লিখে ফেলেছেন আস্ত একটি বইও। মানুষের বিপদে বরাবর পাশে দাঁড়াতে ছুটে যাবেন তিনি। অপর একজন সাধারণ মানুষ হিসেবেই। এই মন্ত্রে দীক্ষিত হয়েই কাজ করে চলেছেন বাস্তবের এই ‘সুপার হিরো’।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.