করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সামাল দিতে প্রস্তুত হচ্ছে রাজ্য! টেলিমেডিসিনের পর এবার থেকে ভিডিও কলেও পাওয়া যাবে চিকিৎসকের পরামর্শ

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সামাল দিতে প্রস্তুত হচ্ছে রাজ্য! টেলিমেডিসিনের পর এবার থেকে ভিডিও কলেও পাওয়া যাবে চিকিৎসকের পরামর্শ
করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সামাল দিতে প্রস্তুত হচ্ছে রাজ্য! টেলিমেডিসিনের পর এবার থেকে ভিডিও কলেও পাওয়া যাবে চিকিৎসকের পরামর্শ

রাজ্যে ভয়াবহ হচ্ছে করোনা। এই পরিস্থিতিতে ভিডিও কলে রোগী দেখার ব্যবস্থা করার সিদ্ধান্ত নিলো রাজ্য। শুক্রবার নবান্নে রাজ্যের মুখ্য সচিব, স্বাস্থ্য আধিকারিক ও হাসপাতাল এবং নার্সিংহোমের আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এতদিন ফোন করে টেলি মেডিসিনের মাধ্যমে চিকিৎসকদের পরামর্শ নিতে পারতেন করোনা রোগীরা। এদিনের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে,এবার থেকে চিকিৎসকদের সঙ্গে সরাসরি ভিডিও কলে কথা বলতে পারবেন করোনা আক্রান্তরা। এছাড়াও বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে কোভিড ফেসিলিটি পিক-টাইম আগের থেকে আরও ২৫ শতাংশ বাড়াতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি সরকারি হাসপাতালেও ২০ শতাংশ কোভিড ফেসিলিটি বাড়ানোর কথা বলেছে রাজ্য সরকার।

রাজ্যে যে হারে সংক্রমণ বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে শয্যার আকাল দেখা দিতে পারে বলে মনে করছে চিকিৎসক মহল। এই অবস্থায় করোনা বিধি মানার পাশাপাশি চিকিৎসা পরিকাঠামোকেও উপযুক্ত রাখা একই সঙ্গে প্রয়োজনীয়। তাই এবার শয্যা সংখ্যা বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে এই বৈঠকে। জানা গিয়েছে, এই পরিস্থিতিতে অতিরিক্ত শয্যা যুক্ত হতে চলেছে রাজ্যের ১৩টি ইএসআই হাসপাতালে।

বালটিকুরী, ব্যান্ডেল এবং জোকা ইএসআই কে করোনা হাসপাতাল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সূত্রের খবর, করোনা রোগীদের জন্য বেড সংখ্যা বাড়িয়ে ১,৪০০ করা হবে। গত বছরের চেয়ে ২৫ শতাংশ করোনা বেড বৃদ্ধির প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও ১২টি পুলিশ হাসপাতালকে সেফ হোমে রূপান্তরিত করা হবে।

পাশাপাশি, পুলিশ অফিসার ও কর্মীরা ওই সেফ হোম গুলিতে চিকিৎসা পাবেন৷ পুলিশ হাসপাতালে মোট বেড সংখ্য করা হচ্ছে ৩৪০ টি। একইসঙ্গে এদিন নবান্নের তরফে নির্দেশ দিয়ে বলা হয়েছে রাজ্য পুলিশ ও ফ্রন্ট লাইন ওয়ার্কারদের জন্য ১০০ শতাংশ টীকাকরণ নিশ্চিত করতে হবে।