বিধানসভায় যোগ দান করলে কোনও মহাভারত অশুদ্ধ হয় না! পাল্টা দাবি সুব্রতর

বিধানসভায় যোগ দান করলে কোনও মহাভারত অশুদ্ধ হয় না! পাল্টা দাবি সুব্রতর
বিধানসভায় যোগ দান করলে কোনও মহাভারত অশুদ্ধ হয় না! পাল্টা দাবি সুব্রতর

ইতিমধ্যেই বিধানসভায় সব্যসাচী দত্তর দলবদল নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। বিধানসভার মধ্যে এভাবে দলীয় পতাকা হাতে তুলে নেওয়া কার্যত নজিরবিহীন বলেই দাবি করেছে বিভিন্ন মহল। বিধানসভায় যোগদান করলে কোন মহাভারত অশুদ্ধ হয় না বলে মন্তব্য করলেন ক্রেতা সুরক্ষা দপ্তরের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়।

নজিরবিহীনভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিধায়ক হিসেবে গ্রহণের দিন ফের তৃণমূলে ফিরে আসেন সব্যসাচী দত্ত। তবে বিধানসভায় পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং ফিরহাদ হাকিম এর হাত থেকে দলীয় পতাকা তুলে নিয়ে দলবদলেই শুরু হয় রাজনৈতিক চাপানউতোর। এমনকি বিধানসভার স্পিকার ও জানিয়েছেন এই বিষয়টি না হলেই ভালো হতো।

অন্যদিকে শুভেন্দু অধিকারী জানান, “বিধানসভা কোন পার্টি অফিস নয়। সংবিধানের মূল অস্তিত্বকে নস্যাৎ করে ফর দ্যা পার্টি, বাই দ্যা পার্টি, অফ দ্যা পার্টির এটাই শেষ জায়গা।” সঙ্গে গোটা বিষয়ে তারা জনস্বার্থ মামলা দায়ের করবেন বলেও জানান।

এরপরে পাল্টা জবাব দেন রাজ্যের সুরক্ষা দপ্তরের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। বলেন, “বিধানসভা কি মন্দির না মসজিদ যে ওখানে যোগদান হবে না? বিধানসভার সমস্ত নিয়মকানুন বইতে লেখা আছে। সেখানে কোথাও লেখা নেই যে বিধানসভায় যোগদান করা যাবেনা। বিধানসভার মূল ব্যাপারটা খারাপ আচরণ অসদাচরণ অসভ্য কথাবার্তা বলা নয়। এগুলি বিধানসভা কে কলুষিত করে। হাতে পতাকা তুলে নিলে বিধানসভা কলুষিত হয় না”।