ফের চিন্তা বাড়াচ্ছে করোনা! এই পাঁচ রাজ্যকে দ্রুত টিকাকরণের নির্দেশ দিল কেন্দ্র

ফের চিন্তা বাড়াচ্ছে করোনা! এই পাঁচ রাজ্যকে দ্রুত টিকাকরণের নির্দেশ দিল কেন্দ্র
ফের চিন্তা বাড়াচ্ছে করোনা! এই পাঁচ রাজ্যকে দ্রুত টিকাকরণের নির্দেশ দিল কেন্দ্র / ছবি সৌজন্যেঃ Facebook Post By @wbdhfw / Representative Image.

বংনিউজ২৪x৭ ডেস্কঃ ফের দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে করোনার নয়া স্ট্রেইন। বিজ্ঞানীদের মতে এই নয়া স্ট্রেইন এর ওপর বিশেষ ভাবে নজর রাখা প্রয়োজন। কারন এর প্রকোপ আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এমনকি করোনার নয়া স্ট্রেইন এ কেউ আক্রান্ত হলে শরীরে অ্যান্টিবডি থাকলেও কোন কাজ দেবে না বলে জানা যাচ্ছে। এছাড়া যারা একবার করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তারা আবারও করোনার নয়া স্টেইন এও আক্রান্ত হতে পারেন।

এমনকি নয়া স্ট্রেইন এ আক্রান্তের শরীরে বাসা বাঁধছে নিউমোনিয়া। যার ফলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে পারে। এক রাতের মধ্যে মহারাষ্ট্রে করোনার নয়া স্টেইন যে হারে ছড়িয়েছে তার ভয়াবহতা নিয়ে চিন্তিত বিশেষজ্ঞরা। অন্যদিকে মহারাষ্ট্র এর মুম্বই, পুণে, নাগপুর, অমরাবতী, আকোলা, থাণে সহ কেরল, পঞ্জাব, মধ্য প্রদেশ সহ ছত্তিশগড়ে ফের নতুন করে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। আর এসবের কারণে ফের ঘরবন্দি হওয়ার আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে!

আর ফের করোনা ঊর্ধ্বমুখী হওয়ায় কেন্দ্র সরকার ৫ রাজ্যকে চিঠি পাঠিয়ে করোনার বিরুদ্ধে সতর্ক হওয়ার নির্দেশ জানিয়েছেন। উল্লেখ্য মহারাষ্ট্র, মধ্য প্রদেশ, ছত্তিশগড়, পঞ্জাব সহ জম্মু ও কাশ্মীর এই ৫ রাজ্যে স্বাস্থ্যকর্মী সহ প্রথম সারির করোনা যোদ্ধাদের দ্রুত ভ্যাকসিন দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্র। ইতিমধ্যে ১ কোটি ২০ লক্ষ জনকে করোনার ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে। তারমধ্যে রয়েছেণ ৬৪ লক্ষ ৭ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী ও ৪১ লক্ষ ১ হাজার প্রথম সারির করোনা যোদ্ধা।

প্রসঙ্গত গতবছর করোনার জেরে নাজেহাল হয়ে পড়েছিল গোটা দেশ। প্রায় কয়েকমাস ধরে চলেছে লকডাউন। মানুষ প্রায় ঘরবন্দি হয়ে পড়েছিল। বন্ধ ছিল অফিস, আদালত, মন্দির, নানা অনুষ্ঠান। বহু খেটে খাওয়া মানুষের রুজি রোজকারও বন্ধ হয়েছিল। তবে গতবছর পুজোর আগে থেকে পরিস্থিতি একটু একটু করে আয়ত্বে আসে। কমতে শুরু করে দৈনিক করোনা আক্রান্তের হার। বৃদ্ধি পায় সুস্থতার হারও। বর্তমানে পরিস্থিতি অনেকটাই স্বাভাবিক। খুলে গিয়েছে অফিস, আদালত, মন্দির, নানা ধরনের অনুষ্ঠানও হচ্ছে। এছাড়া এই মাস থেকেই চালু হয়েছে সরকারি, সরকারি সাহায্য প্রাপ্ত, বেসরকারি বেশকিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। আর তারই মাঝে ফের বৃদ্ধি পেয়ে চলেছে করোনা সংক্রমণ।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.