লক্ষীপুজোর দিনই একদিনের সদ্যজাত কন্যাকে খুন করল মা

লক্ষীপুজোর দিনই একদিনের সদ্যজাত কন্যাকে খুন করল মা
লক্ষীপুজোর দিনই একদিনের সদ্যজাত কন্যাকে খুন করল মা/প্রতীকী ছবি

লক্ষীপুজোর দিনই কন্যা সন্তানকে খুন করার অভিযোগ উঠল খোদ মায়ের বিরুদ্ধেই। বুধবার সন্ধ্যায় এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে দক্ষিণ বন্দর থানার অন্তর্গত ইস্টার্ন বাউন্ডারি রাউন্ড এলাকায়। ইতিমধ্যেই ইকবালপুরের বেসরকারি ওই হাসপাতালে অভিযুক্ত মহিলাকে পাহারায় রেখেছে পুলিশ।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, বছর একুশের লাভলি সিং মঙ্গলবার এক কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। সুস্থ সন্তানেরই জন্ম দেন তিনি। কিন্তু এদিন সকালে গিয়ে নার্স দেখেন শিশুটি নড়াচড়া করছে না। এমনকি শ্বাসও পড়ছে না। এরপরেই ওই মহিলাকে তাঁর শিশুর কথা জিজ্ঞেস করলে চুপ থাকেন তিনি। যাতে সন্দেহ আরও প্রবল হয়।

নার্সিংহোম সূত্রে খবর, এদিন ভোর সাড়ে পাঁচটা নাগাদই ঘটনাটি ঘটেছে। তখন ওই প্রসূতির স্বামী কেবিন থেকে বেরিয়েছিলেন। সে সময় কাছেপিঠে কেউ ছিল না। ঠিক তখনই এই ঘটনা ঘটান ওই মহিলা। এরপর সকালে যখন হাসপাতালে চিকিৎসক এবং আয়া ওই বাচ্চাটিকে দেখতে যান, তখন তাঁরা দেখেন কন্যা সন্তানটি কোনরকম নড়াচড়া করছে না। তখন তাঁদের সন্দেহ হয়।

এরপরেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পুলিশে খবর দেন। ঘটনাস্থলে আসেন ইকবালপুর থানার পুলিশ। তখনই কথায় কথায় মহিলা স্বীকার করেন, এটিই তাঁর প্রথম সন্তান। কিন্তু তিনি ছেলে চেয়েছিলেন। তবে কন্যা সন্তান হওয়ায় আপত্তি তাঁর। তিনিই নিজের একদিনের সন্তানকে বালিশ চাপা দিয়ে মেরে ফেলেছেন।

নিজের সদ্যজাতকে এইভাবে খুন করায় তাজ্জব গোটা হাসপাতাল সহ পুলিশও। এইভাবে কোনও মা কিভাবে নিজের সন্তানকে মেরে ফেলতে পারে তাই নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ওই মহিলাকে হাসপাতালেই পাহারা দিয়ে রেখেছে পুলিশ। এরপর সে সুস্থ হলে তাঁকে নিজেদের হেফাজতে নেবে তদন্তকারী দল। অন্যদিকে ওই মহিলার কোনও মানসিক সমস্যা আছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।