ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নিয়েই কী মৃত্যু যুবকের? অভিযোগ পরিবারের

ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নিয়েই কী মৃত্যু যুবকের? অভিযোগ পরিবারের
ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নিয়েই কী মৃত্যু যুবকের? অভিযোগ পরিবারের

কসবার ভুয়ো ভ্যাকসিন সেন্টার থেকে যারা ভ্যাকসিন নিয়েছেন এখনো আতঙ্কিত রয়েছেন তারা। এদিকে এর মধ্যেই ভ্যাকসিন নিয়ে মৃত্যুর অভিযোগ উঠল খাস কলকাতারই বুকে।ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নেওয়ার পর এই মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ। এমনকী এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে এলাকায়।

গত ২২ জুন এলাকার আতাবাগান আরবান স্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে সে ভ্যাকসিন নিয়েছিলেন গড়িয়া বোড়াল লেকপোল এলাকার বাসিন্দা সুরজিৎ বন্দোপাধ্যায় (২৭)।

পরিবার সূত্রে খবর, ওই ভ্যাকসিন নেওয়ার পরেই অসুস্থ হয়ে পড়ে সুরজিৎ। প্রথমে জ্বর আসে। সেটা দু’‌দিন ছিল। তারপর বমি হতে শুরু করে। এমনকী সারা গায়ে ছোপ ছোপ কালো দাগ দেখা দিতে শুরু করে। বুধবার সন্ধ্যায় শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে এলাকার আতাবাগান আরবান প্রাথমিক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসে পরিবার।

সেখানে শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখে চিকিৎসকরা এসএসকেএম হাসপাতালে রেফার করেন। সেখানে নিয়ে যাওয়ার পথেই বাঘাযতীনের কাছে মারা যান ওই যুবক। এরপরে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এই ঘটনার কথা এলাকার স্বাস্থ্য আধিকারিকদের জানিয়েছেন পরিবার। গোটা এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

যদিও এই ব্যক্তি ওই যেই ভ্যাকসিন সেন্টার থেকে ভ্যাকসিন নিয়েছেন সেখানে ভুয়ো ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছিল কিনা সে বিষয়ে স্পষ্ট নয়। তবে ঘটনার তদন্ত হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন স্বাস্থ্য আধিকারিকরা।

প্রসঙ্গত, ওই ভুয়ো ভ্যাক্সিনেশন সেন্টার থেকে যারা ভ্যাকসিন নিয়েছিলেন ইতিমধ্যেই তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার জন্য স্বাস্থ্য ভবনের তরফে কসবা নিউমার্কেটে জরুরি স্বাস্থ্য শিবির চালু করা হয়েছে।এদিকে ভুয়ো টিকার চরিত্র নির্ণয় করতে দুই সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছে স্বাস্থ্য ভবন। পাশাপশি কসবা ভুয়ো ভ্যাক্সিনেশন সেন্টার থেকে ভ্যাকসিন নিয়েছেন তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার পর টিকা দেওয়ার দায়িত্ব নিয়েছে কলকাতা পুরসভা।বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের পরামর্শ নিয়েই তাঁদের করোনার টিকাকরণ করবে কলকাতা পুরভবন।