এবারের একুশে জুলাইয়ে তৃণমূলের চমক হতে পারেন এই বিজেপি নেতা

এবারের একুশে জুলাইয়ে তৃণমূলের চমক হতে পারেন এই বিজেপি নেতা
এবারের একুশে জুলাইয়ে তৃণমূলের চমক হতে পারেন এই বিজেপি নেতা

এবারের একুশে জুলাইয়ে বড় চমক দিতে পারে তৃণমূল। দলীয় সূত্রে খবর, এবারের একুশে জুলাইয়ের ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পারেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিনহা ও তামিলভূমের জনপ্রিয় নেতা ভাইকো ওরফে ভাইয়াপুরি গোপালাস্বামী।শুধু তাই নয়, ২১ শে জুলাই-এর মঞ্চে আরও বেশকিছু বড় জাতীয় স্তরের নেতাদের যোগদানের কথাও শোনা যাচ্ছে।

গতবছর করোনার প্রকোপ অনাড়ম্বরপূর্ণভাবে ভার্চুয়ালি পালিত হয়েছিল একুশে জুলাই। এবারেও পরিস্থিতি একই রকম। তাই এবারের একুশে জুলাইও ভার্চুয়ালি হওয়ার সম্ভাবনাই রয়েছে। এমনকি ব্রিগেডে যে বিজয় উৎসব তৃণমূলের হওয়ার কথা ছিল সেই উৎসবে আপাতত স্থগিত থাকবে বলেই খবর দলীয় সূত্রে। গতবছর নিজের কালীঘাটের বাড়ি থেকেই ভার্চুয়ালি একুশে জুলাইয়ে বক্তৃতা দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই বক্তৃতা বিভিন্ন চ্যানেলে এবং বিভিন্ন পার্টি অফিসে জায়ান্ট স্ক্রিন এর মাধ্যমে দেখানো হয়েছিল। এমনকি বিভিন্ন পার্টি অফিস গুলিতে বেশি জমায়েত করতে বারণ করেছিলেন দলনেত্রী। চলতি বছরেও যা পরিস্থিতি তাতে ভার্চুয়ালি একুশে জুলাই পালিত হবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

এদিকে, দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক হয়ে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই জানিয়েছিলেন এবারের লড়াই ৫৪৩ আসনে। ইতিমধ্যেই ত্রিপুরা ও উত্তরপ্রদেশের নির্বাচনের জন্য কাজ শুরু করেছেন তিনি। মুকুল রায় ও ডেরেক ও ব্রায়েনকে নিয়ে দুই রাজ্যের নির্বাচনের ব্লুপ্রিন্ট সাজাচ্ছেন অভিষেক। আর সেইমতোই জাতীয় স্তরে উত্থানের জন্য পরিকল্পনা শুরু করেছে ঘাসফুল শিবির।

ইতিমিধ্যেই জাতীয় স্তরের বিভিন্ন নেতার যোগাযোগ বেড়েছে তৃণমূলের সঙ্গে। বাজপেয়ীর জমানার অর্থমন্ত্রী যশবন্ত সিনহা এখন তৃণমূলে। রাজনৈতিক মহলের মতে, স্ট্যালিনের উত্থানের জন্য কিছুটা ব্যাকফুটে থাকলেও তৃণমূলে ভাইকোর যোগ তামিলনাড়ুতে নতুন রাজনীতির অঙ্ক তৈরি করবে। তাঁকে সঙ্গে নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস দক্ষিণ ভারতে রাজত্ব বিস্তারের পরিকল্পনা নিয়েছে। বর্তমানে ভাইকো তামিলনাড়ু থেকে রাজ্যসভার সাংসদ। তবে এখনও পর্যন্ত পুরোটাই রয়েছে প্রাথমিক স্তরে। আলাপ-আলোচনা চলছে।

এছাড়াও শত্রুঘ্ন সিনহাকে সামনে রেখে বিহারে ও হিন্দি ভাষী ভোটে নিজেদের পায়ের তলার জমি শক্ত করতে সুবিধা হবে ঘাসফুল শিবিরের।