CAA ও NRC-এর নেতিবাচক দিকগুলি তুলে ধরতে এবার আমজনতার বাড়ি গিয়ে বোঝানোর সিদ্ধান্ত তৃনমূলের

Image source: Google

বিশেষ প্রতিবেদনঃ দিন কয়েক আগেই সিএএ ও এনআরসি-এর প্রয়োজনীয়তা এবং তার ইতিবাচক দিকগুলি মানুষকে তুলে ধরার স্বার্থে ঘরে ঘরে গিয়ে তা বঝানোর সিদ্ধান্ত নেয় বিজেপি। এবার বিজেপির দেখানো সেই পথে হেঁটেই সিএএ ও এনআরসি’র বিরোধিতায় নামল তৃণমূল কংগ্রেস। আর এই কাজে দলের মহিলা ব্রিগেডকেই কাজে লাগিয়েছে মমতা সরকার। কাজে নামার আগে প্রশিক্ষন শিবিরে চলছে তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রীদের প্রশিক্ষন দেওয়ার কাজ।

আগামী এপ্রিল মাসেই পুরোভোট। এই ভোটে এখন তৃনমূলের কাছে হাতিয়ার হয়ে উঠেছে NRC ও CAA। তাই বিজেপিকে কোনঠাসা করার প্রক্রিয়া চলছে জোরকদমে। বিভিন্ন বুথে NRC ও CAA নিয়ে পার্টিক্লাস শুরু করেছে তৃণমূল। এখানে প্রান্তিক স্তরের কর্মীদের ক্লাস নিচ্ছেন তৃণমূল কংগ্রেসের মহিলা নেত্রীরা।

জানা গিয়েছে এই প্রশিক্ষন কেন্দ্র গুলিতে NRC ও CAA-এর নেতিবাচক দিকগুলি কীভাবে সাধারণ মানুষের সামনে তুলে ধরা হবে তা শেখানো হচ্ছে। পাশাপাশি এই নেতিবাচক দিকগুলি ঠিক কি কি সেবিষয়েও সম্যক ধারনা দেওয়া হচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রীদের। তাঁদের কথা, ভোটার কার্ড যাঁদের কাছে রয়েছে তাঁরা সকলেই ভারতের নাগরিক হিসাবে বিবেচিত হবেন, তাহলে কেন আলাদা ভাবে নাগরিকপঞ্জিকরন? একজন নাগরিক হিসাবে আপনার শুধুমাত্র ভোটার লিস্টে নাম থাকলেই চলবে। এর বাইরে কিছু দরকার নেই। তৃনমূল কংগ্রেসের বক্তব্য, NRC ও CAA-এর জন্য সংখ্যালঘুদের কোন ক্ষতি হবেনা, বিপদে পড়বে সংখ্যাগুরুরাই। সুত্রের খবর, প্রশিক্ষন পর্ব শেষ হলেই সাধারণ মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে NRC ও CAA-এর নেতিবাচক দিকগুলি তুলে ধরবেন তৃণমূলের মহিলা কর্মীরা।

আরও পড়ুনঃ  খড়গপুর - ভুবনেশ্বর জাতীয় সড়কে পথ দুর্ঘটনা

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.