শরীর খারাপ তাই আজই নিজাম প্যালেসে হাজিরা দিচ্ছেন না অনুব্রত মণ্ডল

শরীর খারাপ তাই আজই নিজাম প্যালেসে হাজিরা দিচ্ছেন না অনুব্রত মণ্ডল
শরীর খারাপ তাই আজই নিজাম প্যালেসে হাজিরা দিচ্ছেন না অনুব্রত মণ্ডল

আজ সিবিআই দফতরে হাজিরা দিচ্ছেন না বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। সূত্রের খবর, শরীর খারাপ এবং বর্তমান করোনা পরিস্থিতিকে ঢাল করেই এদিন হাজিরা এড়ালেন তিনি। তবে সিবিআইয়ের কাছে দুই সপ্তাহ সময় চেয়েছেন অনুব্রত মণ্ডল।

গরু পাচার কাণ্ডে বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে সোমবার নোটিশ দেয় সিবিআই। সেখানে তাঁকে আজ মঙ্গলবার হাজিরা দিতে বলা হয়। পাশাপাশি তাঁর এক সাগরেদকেও নোটিশ দেওয়া হয়। কিন্তু তাঁর আগেই সিবিআইয়ের কাছে আরও দুই সপ্তাহ সময় চেয়ে বসলেন তিনি।

এই প্রসঙ্গে অনুব্রত বাবু জানান, শরীর ভাল নেই। কিডনির সমস্যা। তার মধ্যে করোনার বাড়বাড়ন্ত। বাড়ির থেকে বের হতে ভয় পাচ্ছেন তিনি। এছাড়াও তাঁর সেই সঙ্গীর বাড়িতে অনেকেই করোনা আক্রান্ত। তাই হোম আইসোলেশনে রয়েছেন। এখনই বাড়ির বাইরে বেরোনো সম্ভব নয়। কেষ্ট আরও জানান, “আমি আইন মেনে চলি। অসুস্থতার কারণে ২ সপ্তাহ আমাকে সময় দেওয়া হোক”।

এদিকে, ২৯ এপ্রিল ভোট রয়েছে বীরভূমের একাধিক কেন্দ্রে। তাঁর আগেই তৃণমূল নেতা কে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার তলব বিরোধীদের খানিকটা বাড়তি অক্সিজেন দিচ্ছে তা বলাই বাহুল্য। কিন্তু এখন সিবিআই অনুব্রত মণ্ডলের এই আবেদন গ্রহণ করে কিনা সেটাই এখন দেখার।

অন্যদিকে, তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গতকাল মিনার্ভা থিয়েটারের সভা থেকে সিবিআইয়ের তলবে সাড়া না দিতেই পরামর্শ দেন তাঁর প্রিয় কেষ্টকে। বলেন, “নির্বাচনের আগে সিবিআইয়ের দুটো লোক গিয়ে কেষ্টকে বলছে দেখা করতে। কেন যাবে? ২৯-এ ওদের ওখানে ভোট। আমি বলে দিয়েছি একদম যাবি না। স্ট্রেট বলবি, ইলেকশন প্রসিডিউর ওভার হবে। তার পর যাব।”

তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই মন্তব্যের পর সংবিধান রক্ষা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার। তিনি বলেন, “সংবিধানের শপথ নিয়ে মাননীয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কী ভাবে পরামর্শ দিলেন তুমি যাবে না? এটা তো অসাংবিধানিক”।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.