রাত পোহালেই ভবানীপুরের ভাগ্য পরীক্ষা! শেষ হাসি হাসবে কে?

রাত পোহালেই ভবানীপুরের ভাগ্য পরীক্ষা! শেষ হাসি হাসবে কে?
রাত পোহালেই ভবানীপুরের ভাগ্য পরীক্ষা! শেষ হাসি হাসবে কে?

রাত পোহালেই ভবানীপুরের উপ নির্বাচনের ফল প্রকাশ। জয় কি হবে মমতার? সেই দিকেই তাকিয়ে এখন গোটা রাজ্য তথা দেশ। সামশেরগঞ্জ, জঙ্গিপুরের থেকেও রাজনৈতিক মহলের নজর ভবানীপুরের উপনির্বাচনের ফলের দিকে।

জানা গিয়েছে, আলিপুরে জেলাশাসকের অফিসে ভবানীপুরের ভোট গণনা হবে৷ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তা বলয়ে মুড়ে ফেলা হয়েছে গণনা কেন্দ্রটি৷ উপস্থিত রয়েছেন পুলিশ আধিকারিকরাও৷ কড়া নিরাপত্তা রয়েছে স্ট্রং রুমের বাইরেও৷ সশস্ত্র অবস্থায় স্ট্রং রুমের নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনী৷ বসানো হয়েছে সিসিটিভি ক্যামেরা৷ ২০ রাউন্ডের বেশি গণনা হবে৷সকাল সাতটা থেকে শুরু হবে গণনা।

ভোটের দিন ফিরহাদ হাকিম জানিয়ে দিয়েছিলেন, “দিদি এবার ৫০ হাজারের বেশি ভোটে জিতবে”৷ তাই ফল প্রকাশের পর সবুজ আবির উড়িয়ে রাস্তায় জয়োল্লাসে ব্যাকুল হবে তৃণমূল কর্মীরা৷ এদিকে ঐদিন রাজনৈতিক সংঘর্ষের আশঙ্কা থেকেই গণনাকেন্দ্রের বাইরে ১৪৪ ধারা জারি থাকবে বলে আগেই জানিয়েছিল নির্বাচন কমিশন৷ সেই মতই গণনাকেন্দ্রের ১০০ মিটারের মধ্যে পাঁচজনের বেশি যেতে পারবেন না৷

এদিকে বিধানসভার ফলাফলের নিরিখে দেখতে গেলে ২০১১ থেকেই এখানে অন্তত ২৫ হাজারের বেশি ভোটে জিতেছেন  তৃণমূল প্রার্থীরা। তাই বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এবার তার ব্যতিক্রম হবে না। তারমধ্যে স্বয়ং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রার্থী হওয়ায় ভবানীপুর থেকে একটা  রেকর্ড হতে পারে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। যদিও এবারের ভবানীপুরের মোট ভোট পড়েছে ৫৭.০৯ শতাংশ। অন্যদিকে চিন্তায় রেখেছে হিন্দিভাষী ভোটাররাও। তাই এবারের ভবানীপুরের উপনির্বাচনের ফলাফল নিয়ে বাড়তি উত্তেজনা চড়ছে রাজনৈতিক মহলে।