ফের একবার সিয়াচেনে তুষারধসে শহিদ দুই ভারতীয় জওয়ান!

ফের একবার সিয়াচেনে তুষারধসে শহিদ দুই ভারতীয় জওয়ান!
ফের একবার সিয়াচেনে তুষারধসে শহিদ দুই ভারতীয় জওয়ান!

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ সিয়াচেনে হিমবাহ ধসে শহিদ হলেন দুই ভারতীয় জওয়ান। আরও চার জনের আহত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে।

সূত্রের খবর, রবিবার দুপুর ১ টা নাগাদ এই ঘটনাটি ঘটে। প্রায় ৬ ঘণ্টা পর, সন্ধে ৭ টা নাগাদ ওই দুই জওয়ানের দেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়। এই ঘটনায় আরও অনেক জওয়ান ও মাল বহনকারী হিমবাহ ধসে আটকে থাকতে পারেন বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, সিয়াচেনে এমন ঘটনা আগেও বহুবার ঘটতে দেখা গেছে। চলতি মাসে এই ঘটনা প্রথমবার নয়, এর আগে ১৪ এপ্রিল তুষারধসের কারণে প্রাণ হারান এক সেনা অফিসার।

জানা গিয়েছে, রবিবারের ঘটনায় শহিদ দুই জওয়ানই পঞ্জাবের বাসিন্দা। তাঁদের নাম প্রভজিৎ সিং ও অমরদীপ সিং। দক্ষিণ হিমবাহের সাব সেক্টর হানিফে ধস থেকে এই দুই জওয়ানের দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এদিকে, ইতিমধ্যেই পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরেন্দ্র সিং নিহতদের পরিবার প্রতি ৫০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ ও পরিবারের একজনকে সরকারি চাকরি দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন। এও জানা গিয়েছে যে, মঙ্গলবার, ২৭ এপ্রিল অর্থাৎ আজ লেহ থেকে তাঁদের দেহ বাড়ির উদ্দেশে রওনা হবে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কারাকোরাম পর্বতমালার অন্তর্গত সিয়াচেন হিমবাহ ভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ২০ হাজার ফুট উঁচুতে অবস্থিত। সিয়াচেন হিমবাহ পৃথিবীর উচ্চতম সামরিক ক্ষেত্র। এখানে এমন তুষারধস খুবই স্বাভাবিক ঘটনা। এখানকার তাপমাত্রা মাইনাস ৬০ ডিগ্রি সেলসিয়াসেও নেমে যায়। এমন প্রতিকূলতার সঙ্গে লড়াই করে নিজেদের কর্তব্য পালন করে চলেন এখানে টহলরত সেনাবাহিনীর জওয়ানরা।

তুষারধসের কারণে শুধুমাত্র এখানে টহলরত সেনারাই নয়, সেনা পোস্টগুলিও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এর মধ্যে ২০১৬ সালে উত্তর সিয়াচেনে সেনাবাহিনীর একটি শিবিরে তুষারপাতের ধাক্কায় দশজন সেনা বরফের ভিতরে তলিয়ে যান।