মাত্র দু’মিনিটের ভিডিও! হাসপাতালের সিঁড়িতে কি উদ্দাম যৌনতায় মত্ত যুগল? মুহূর্তেই ভাইরাল

মাত্র দু’মিনিটের ভিডিও! হাসপাতালের সিঁড়িতে কি উদ্দাম যৌনতায় মত্ত যুগল? মুহূর্তেই ভাইরাল
মাত্র দু’মিনিটের ভিডিও! হাসপাতালের সিঁড়িতে কি উদ্দাম যৌনতায় মত্ত যুগল? মুহূর্তেই ভাইরাল

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ মাত্র দু’মিনিটের একটি ভিডিও! আর এই দু’মিনিটের এই ভিডিওই হইচই ফেলে দিয়েছে। রীতিমতো মুহূর্তেই ভাইরাল সেই ভিডিও। এই ভিডিওর ঘটনাস্থল মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে হাসপাতালের সিঁড়ি। আর সেই সিঁড়িতে বসে রয়েছেন এক যুগল। দু’জনের মধ্যে পুরুষটি তাঁর সঙ্গিনীর বক্ষলগ্না হয়ে, তাঁকে কিছু বোঝানোর চেষ্টা করছেন। তাঁরা খুবই ঘনিষ্ঠ অবস্থায় বসে কথা বলছেন। সঙ্গিনীর মাথা কাপড়ে ঢাকা। এভাবেই কিছুক্ষণ চলার দু’জনেই চলে যান চাদরের তলায়। গোটা দু’মিনিটের সেই ভিডিয়োতে দেখা গিয়েছে এটুকুই। আর এই ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। মেডিক্যাল কলেজে দিনদুপুরে কীভাবে এই ‘অবাধ যৌনতা’ চলতে পারে তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করছে।

মঙ্গলবার সকালে, মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আউটডোর বিভাগের সিঁড়িতে যুগলের এই ‘অশ্লীল’ কীর্তিকলাপের ভিডিও ভাইরাল হতেই হইচই পড়ে যায়। যদিও এই ভিডিওর সত্যতা যাচাই করেনি বং নিউজ ২৪x৭।

জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত যুগলের বাড়ি কালিয়াচক থানা এলাকায়। দু’জনেই পূর্ব পরিচিত। সেই পরিচয় থেকেই সম্পর্ক। আড়াল রাখার চেষ্টা করলেও, হাসপাতালের সিঁড়িতে অভিযুক্ত যুগলের যৌনতা চরমে পৌঁছে যায় বলে অভিযোগ করা হয়েছে হাসপাতাল কর্মীদের পক্ষ থেকে। এই কর্মীদেরই একজন গোটা ঘটনাটির লুকিয়ে ভিডিও করেছিলেন। খবর পেয়ে, ছুটে আসেন নিরাপত্তা রক্ষীরা। তাঁরাই ওই যুগলকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন।

এই ঘটনায় হাসপাতালের এক কর্মী জানিয়েছেন যে, ‘ওরা দু’জনেই দীর্ঘদিনের পূর্বপরিচিত। সম্পর্ক ছিল কি না জানি না। হাসপাতাল চত্বরে এই ধরনের ঘটনা ঘটা কাম্য নয়। এখানে মানুষ চিকিত্‍সা করাতে আসেন। কতরকম জরুরি পরিষেবা চলে। তারমধ্যে এমন ব্যক্তিগত আচরণ ঘৃণ্য ও গ্রহণযোগ্য নয়। এই ধরনের আচরণ হাসপাতালে মানা যায় না।’

অন্যদিকে, এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত হাসপাতালের পক্ষ থকে কোনও বিশেষ প্রতিক্রিয়া মেলেনি। তবে, হাসপাতালের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক জানিয়েছেন, এই ধরনের ঘটনা হাসপাতালে কাম্য নয়। যদি হয়ে থাকে, তবে দোষীদের উপযুক্ত শাস্তি হবে। তবে গোটা ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। মালদা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল সূত্রে খবর, উভয়কেই প্রথমে হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির হাতে তুলে দেন নিরাপত্তা রক্ষীরা। পরে সেখান থেকে অভিযুক্তদের ইংরেজবাজার থানার পুলিশ আটক করে নিয়ে যায়।