কেন ছাড়লেন টি-২০ অধিনায়কত্ব? বিদায়লগ্নে কারণ জানালেন কোহলি

কেন ছাড়লেন টি-২০ অধিনায়কত্ব? বিদায়লগ্নে কারণ জানালেন কোহলি
কেন ছাড়লেন টি-২০ অধিনায়কত্ব? বিদায়লগ্নে কারণ জানালেন কোহলি

চলতি টি-২০ বিশ্বকাপ থেকে বিদায় ভারতীয় দলের। এরপরই কুড়ি ওভারের ক্রিকেটের অধিনায়কত্ব ছাড়লেন ক্যাপ্টেন কোহলি৷ সোমবার, অধিনায়ক হিসেবে ক্রিকেটের ক্ষুদ্রতম ফরম্যাটে ৫০ নম্বর ম্যাচ খেলে নজির গড়লেন বিরাট। আর সেই রাতেই টি-২০ ক্যাপ্টেন্সিকে বিদায় জানালেন তিনি। বিদায় লগ্নে কোহলির গলায় ঝরে পড়ল আবেগ৷

সোমবার, ক্যাপ্টেন হিসেবে দেশের জার্সিতে ৫০ তথা শেষতম ম্যাচ খেলতে নেমেছিলেন বিরাট। মুখোমুখি ছিল নামিবিয়া। আর তাদের হারিয়েই নেতৃত্ব ছাড়লেন কিং কোহলি। সোমবার নামিবিয়াকে ৯ উইকেটে হারিয়ে এবারের মতো শেষ হল ভারতের বিশ্বকাপ অভিযান। সেমিফাইনাল থেকে ছিটকে গিয়ে এই ম্যাচ নিয়মরক্ষার হলেও বেশ দাপটের সঙ্গেই জিতলেন বিরাট বাহিনী।

ম্যাচ শেষেই অবশ্য আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন ‘চিকু’। নিজের মুখেই স্বীকার করেন কেন ছাড়লেন টি-২০ অধিনায়কত্ব। বিরাটের কথায়, “প্রথমেই বলি টি-২০ অধিনায়কত্ব ছেড়ে স্বস্তি হচ্ছে। এটা অত্যন্ত সম্মানের দায়িত্ব ছিল। কিন্তু নিজের ওয়ার্কলোড ম্যানেজ করার জন্য এটাই সঠিক সময়। টানা ছয়-সাত বছর এভাবে কাজের ধকল আর অত্যন্ত চাপ নিয়েছি।” একইসঙ্গে ভারতের বিশ্বকাপ অভিযান নিয়ে তাঁর বক্তব্য, “ছেলেরা অসাধারণ ক্রিকেট খেলেছে। আমি জানি প্রত্যাশিত ফলাফল পাইনি। কিন্তু আমরা সত্যিই ভাল ক্রিকেট খেলেছি। বিশেষত শেষ তিন ম্যাচ যেভাবে খেলেছি। দলের প্লেয়াররা আমার কাজ অনেক সহজ করে দিয়েছে। টি-২০ ক্রিকেট এখন মার্জিনের খেলা। প্রথম দুই ম্যাচে আমরা আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলতেই পারিনি। সাহসী হয়ে উঠিনি। আগেও তা বলেছি।”

কেন ছাড়লেন টি-২০ অধিনায়কত্ব? বিদায়লগ্নে কারণ জানালেন কোহলি
কেন ছাড়লেন টি-২০ অধিনায়কত্ব? বিদায়লগ্নে কারণ জানালেন কোহলি

উল্লেখ্য, বিরাটের সঙ্গেই এদিন শেষ হল কোচ রবি শাস্ত্রী সহ সাপোর্ট স্টাফদের দায়িত্বও। এদিন সেই প্রসঙ্গ নিয়েও কোচদের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হলেন কোহলি। তাঁর কথায়, “রবি শাস্ত্রী ও তাঁর সাপোর্ট স্টাফদের অনের ধন্যবাদ। তাঁরা দারুণ কাজ করেছেন। খেলোয়াড়দের জন্য এরকম একটা পরিবেশ তৈরি করাই ছিল সবচেয়ে বড় ব্যাপার। যেটা কখনও বদলাবে না। যেদিন সেটা হবে, আমি সেদিন ক্রিকেট খেলা ছেড়ে দেব।” পাশাপাশি তাঁর অগণিত সমর্থকদের আস্বস্ত করে বিরাট এও জানান, “আমি ভারতের অধিনায়ক হওয়ার আগে থেকেই দলের জন্য অবদান রাখার চেষ্টা করেছি। এখনও সেটাই করে যাব।”

টি-২০ অধিনায়ক হিসেবে বিরাট এবং সঙ্গে শাস্ত্রীদের বিদায়ে ভারতীয় ক্রিকেটে যেন এক অধ্যায়ের শেষ হল। দলের হেড কোচ হিসেবে ইতিমধ্যেই দায়িত্ব নিয়েছেন রাহুল দ্রাবিড়। এবার সম্ভবত কুড়ি ওভারের ক্রিকেটের নেতৃত্ব দিতে দেখা যাবে রোহিত শর্মাকে। সেই নতুন সূচনার অপেক্ষাই এখন তাকিয়ে দেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা।