তারকা প্রার্থী দিয়ে ভোট জেতার চেষ্টা করছে তৃণমূল! কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের

তারকা প্রার্থী দিয়ে ভোট জেতার চেষ্টা করছে তৃণমূল! কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের
তারকা প্রার্থী দিয়ে ভোট জেতার চেষ্টা করছে তৃণমূল! কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের / ফাইল ছবি

বংনিউজ২৪x৭ডিজিটাল ডেস্কঃ সামনেই বঙ্গে বিধানসভা নির্বাচন। কালই তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ হয়েছে। এবারের বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন বহু হেভিওয়েট নেতা-নেত্রী এবং মন্ত্রী। সেই জায়গায় স্থান পেয়েছেন অনেক নতুন মুখ এবং তারকা প্রার্থী। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই ক্ষোভ-বিক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

এদিকে প্রতিদিনের মতো আজ, শনিবারও পশ্চিম মেদিনীপুরের খড়গপুর শহরে প্রাতর্ভ্রমণে বেরিয়ে চায়ের আসরে কৃষ্ণনাম গেয়ে খোল-করতাল বাজালেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। পাশাপাশি তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা নিয়ে কটাক্ষ করতেও ছাড়েননি। তিনি তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা প্রসঙ্গে কটাক্ষ করে বলেন যে, তৃণমূল দলের কর্মীদের উপর নির্ভর করেই ক্ষমতায় এসেছিল। দল আজ তাঁদের ভুলে গিয়েছে। সাধারণ কর্মীরা দলের সঙ্গে নেই, তাই তারকা প্রার্থী দিয়ে ভোট জেতার চেষ্টা করছে তৃণমূল। এর সঙ্গে তিনি এও বলেন যে, বিজেপি যাই করবে, সেটাই চমক। উল্লেখ্য, এবারের বিধানসভা নির্বাচনে লড়বেন না বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। দলের শীর্ষ নেতৃত্বদের তেমনটাই সিদ্ধান্ত। তবে, ভোটে না দাঁড়ালেও, দলের হয়ে প্রচারে তিনি কোনও খামতি রাখছেন না।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গতকালই প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, এবারের নিবাচনে তিনি নন্দীগ্রাম থেকে লড়বেন তিনি। তবে, এবারের নির্বাচনের প্রার্থী তালিকা থেকে বহু বিধায়ক বাদ যাওয়ায়, কাল থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় অশান্তি শুরু হয়ে গেছে। টিকিট না পেয়ে ক্ষুব্ধ তৃণমূলের একাধিক নেতা-নেত্রী। প্রকাশ্যেই তাঁরা এ প্রসঙ্গে তাঁদের ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন। এমনকি দল ছাড়ার কথাও কেউ কেউ বলেছেন। ক্ষুব্ধ নেতা-নেত্রীদের মধ্যে রয়েছেন আরাবুল ইসলাম, মইনুদ্দিন শামস, সোনালি গুহ, সিঙ্গুরের রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য, বাঁকুড়ার বিধায়ক শম্পা দরিপা, রফিকুর রহমান প্রমুখ অনেকেই।

এবারের বিধানসভা নির্বাচনে টিকিট না পেয়ে, আরাবুল ইসলাম রীতিমতো দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন। তিনি সরাসরি বলেছেন যে, দলে আজ তাঁর প্রয়োজন ফুরিয়েছে। তাঁর আরও দাবি, তিনি এতদিন দিনরাত এক করে দলের হয়ে কাজ করে গেছেন। যার প্রতিদান আজ তিনি পেলেন। তাঁর আক্ষেপের কথা জানাতে গিয়ে কেঁদেও ফেলেন। বলেন যে, এই দলটাকেই ভালোবেসে সাধারণ মানুষের জন্য, তাঁদের পাশে থেকে কাজ করে গেছেন। এই মুহূর্তে ভাঙরের মানুষ যা ঠিক করবেন, আগামীদিনে তিনি সেটাই করবেন বলে হুঁশিয়ারিও দেন। প্রার্থী তালিকা ঘোষণার পর, আরাবুলকে প্রার্থী ঘোষণা না করার কারণে, কাল তাঁর অনুগামীরা রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে পথ অবরোধ করেন এবং বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।

তাঁর মতোই প্রার্থী হতে না পেরে, আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন সোনালী গুহ। তিনি বলেন, এতো বছর মুখ্যমন্ত্রীর ছায়াসঙ্গী ছিলেন। কিন্তু আজ যা হল, তা তিনি একেবারেই আশা করেননি।‌ কথা বলতে গিয়ে তিনি কেঁদেও ফেলেন। সিঙ্গুরের মাস্টারমশাইও বলেন যে এই বৃদ্ধ বয়সেও তিনি দলের প্রতিটি কাজে যথেষ্ট সক্রিয়। অথচ তাঁকে বয়সের অজুহাত দেখিয়ে, প্রার্থী করা হল না। তিনি এও বলেন যে, নির্বাচনে ফল তৃণমূলের জন্য ভাল হবে না। অন্যদিকে, প্রার্থী তালিকায় নাম না থাকার প্রতিবাদে তৃণমূল ছাড়লেন নলহাটির বিদায়ী বিধায়ক মইনুদ্দিন শামস।

এসব নিয়েই মূলত তৃণমূলকে আজ খোঁচা দিয়েছেন দিলীপ ঘোষ। এদিকে, কাল ব্রিগেড সমাবেশের পর বিজেপির প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হতে পারে বলেও জানা গিয়েছে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.