‘কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন করি, কেন্দ্র দাবি না মানা পর্যন্ত পাশে আছি’, কৃষক নেতাদের আশ্বাস মুখ্যমন্ত্রীর

‘কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন করি, কেন্দ্র দাবি না মানা পর্যন্ত পাশে আছি’, কৃষক নেতাদের আশ্বাস মুখ্যমন্ত্রীর
‘কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন করি, কেন্দ্র দাবি না মানা পর্যন্ত পাশে আছি’, কৃষক নেতাদের আশ্বাস মুখ্যমন্ত্রীর

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ আজ নবান্নে কৃষক আন্দোলনের নেতা রাকেশ টিকাইত এবং অন্যান্য কৃষক নেতারা সাক্ষাৎ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে। নবান্নে কৃষক নেতা রাকেশ টিকাইত ও অন্যান্য নেতাদের সঙ্গে বৈঠকও হয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

এরপরই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করলেন, ‘কেন্দ্র কৃষকদের দাবি না মানা পর্যন্ত আমরা তাঁদের সঙ্গে আছি।’ এদিন কৃষক নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের পর মুখ্যমন্ত্রী স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন যে, বিজেপির নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকার জোর করে নয়া কৃষি আইন পাশ করিয়েছে। অবিলম্বে এই আইন বাতিল করতে হবে। পাশাপাশি তিনি এও বলেছেন যে, ন্যূনতম সহায়ক মূল্য নিশ্চিত করে নতুন করে কৃষি আইন প্রণয়ন করতে হবে।

আজ নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার বিষয়ে কৃষক নেতা রাকেশ টিকাইত জানা যে, বিধানসভা নির্বাচনে জয়ের জন্য তিনি মুখ্যমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানাতে এসেছেন। পাশাপাশি কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন করার জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

রাকেশ টিকাইত

উল্লেখ্য, প্রথম থেকেই দিল্লি সীমান্তে দীর্ঘ সাত মাস ধরে হওয়া কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়ে এসেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এর প্রতিদানে, দিল্লির কৃষক নেতারাও রাজ্য বিধানসভার নির্বাচনের আগে, দিল্লি থেকে এসে বিজেপি বিরোধী প্রচার করে গিয়েছেন। শুধু তাই নয়, সিঙ্গুর-নন্দীগ্রামেও তাঁদের প্রচার করতে দেখা গিয়েছে।

আর সেই কারণেই স্বাভাবিকভাবেই রাজনৈতিক মহলের ধারণা যে, ভোটের আগে বাংলার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে যে সুসম্পর্ক গড়ে উঠেছে দিল্লির আন্দোলনরত কৃষক নেতাদের, সেই সম্পর্কের বন্ধনকেই ২৪-এর লোকসভা ভোটের আগে পক্ত করার লক্ষ্যেই এবার রাজ্যে আগমন কৃষক নেতাদের।

আজ বৈঠকের পর, মুখ্যমন্ত্রী জানান যে, কৃষক নেতারা চাইছেন সব বিরোধী মুখ্যমন্ত্রীকে একসঙ্গে করে একটি ভার্চুয়াল সভার আয়োজন করা হোক। সব রাজ্যকে এক করে আন্দোলন আরও জোরদার করা হোক। কৃষক নেতাদের এই প্রস্তাবকে মুখ্যমন্ত্রী সমর্থন করছেন বলেও জানিয়েছেন। তাই তিনি কৃষক নেতাদের জানিয়েছেন যে, করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলেই, সব বিরোধী শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে কথা বলবেন এই বিষয়ে। সেই প্রতিশ্রুতি তিনি আজ দিয়েছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পরিষ্কার জানিয়েছেন, ‘এমন সব আইন পাশ করিয়েছে, যাতে আজ কৃষি-শিল্প সব সমস্যায়। কৃষি আইন বাতিল করুক কেন্দ্র। আইন পাশ করানোর আগে কৃষকদের সঙ্গে কেন কথা বলেনি? জোর করে পাশ করিয়েছে। এটা সাত মাসের আন্দোলন। আর খালি পাঞ্জাব-হরিয়ানার বিষয় নয়, এটা গোটা দেশের বিষয়। সব রাজ্যকে একত্রিত করে আন্দোলন করতে হবে। আমি মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে কথা বলব।’ এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর প্রশ্ন, ‘রোজ পেট্রল-ডিজেলের দাম বাড়ছে। কৃষকরা চাষবাস কী করে করবে?’

অন্যদিকে, এদিন মমতার সঙ্গে বৈঠকের পর কৃষক নেতা রাকেশ টিকায়েত বলেন, ‘বিজেপিকে ভোট দেবেন না। বিজেপি দেশের ক্ষতি হয়েছে। মমতা দিদি বাংলাকে বাঁচিয়ে নিয়েছেন। এবার দেশ বাঁচানোর পালা। বিজেপি থাকলে দেশ আর থাকবে না। বিজেপি না থাকলে তবেই দেশ বাঁচবে।’