শনিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২৩

‘ভুল করে থাকলে মানুষের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিন’! ক্ষোভের মুখে নির্দেশ ‘দিদির দূত’ তৃণমূল বিধায়কের

আত্রেয়ী সেন | তনুজ জৈন

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৩, ২০২৩, ০৯:০৯ পিএম | আপডেট: জানুয়ারি ২৩, ২০২৩, ০৯:০৯ পিএম

‘ভুল করে থাকলে মানুষের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিন’! ক্ষোভের মুখে নির্দেশ ‘দিদির দূত’ তৃণমূল বিধায়কের
‘ভুল করে থাকলে মানুষের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিন’! ক্ষোভের মুখে নির্দেশ ‘দিদির দূত’ তৃণমূল বিধায়কের

নিজস্ব প্রতিনিধি, মালদাঃ রাজ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচন সামনেই রয়েছে। তার মধ্যে ‘দিদির দূত’ এবং ‘দিদির সুরক্ষা কবচ’ কর্মসূচি নিয়ে মানুষের দুয়ারে দুয়ারে যাচ্ছেন শাসকদলের প্রতিনিধিরা। মন্ত্রী, বিধায়ক এবং নেতাদের সামনে পেয়েই ক্ষোভ উগরে দিচ্ছেন সাধারণ মানুষ। এই অবস্থায় মানুষের কাছে গিয়ে ভুল করে থাকলে, তা শুধরে নেওয়ার বার্তা দিলেন তৃণমূল বিধায়ক নীহাররঞ্জন ঘোষ।

এদিকে, এই নিয়ে বিজেপি কটাক্ষ করে বলছে ‘বিলম্বিত বোধদয়’ হয়েছে। তাঁদের মূল অভিযোগ, পঞ্চায়েত ভোট সামনে বলেই এই ‘আত্মশুদ্ধি’র কথা বলছেন তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব। তবে, শাসকদল বিভিন্ন জায়গায় মানুষের দরবারে গিয়ে যেভাবে ক্ষোভের মুখে পড়ছেন, তাতে এই মুহূর্তে রাজনৈতিক তরজা তুঙ্গে।

রাজ্যের পঞ্চায়েত ভোট সামনে রেখে, জনসংযোগ বাড়াতে ‘দিদির দূত’ কর্মসূচি শুরু করেছে রাজ্যের শাসকদল। সেই কর্মসূচি নিয়ে সোমবার চাঁচল ১ নম্বর ব্লকের অলিহণ্ডা গ্রাম পঞ্চায়েতে যান ইংরেজবাজারের বিধায়ক নীহার রঞ্জন ঘোষ। উল্লেখ্য, ওই গ্রাম পঞ্চায়েত বর্তমানে তৃণমূলের দখলে। সেখানেই পঞ্চায়েতের প্রধান, উপপ্রধান এবং পঞ্চায়েত সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করেন বিধায়ক নীহার রঞ্জন ঘোষ। এদিন এলাকার উন্নয়নের প্রসঙ্গ থেকে মানুষের অভাব-অভিযোগ মন দিয়ে শোনেন বিধায়ক। এরপর দলীয় নেতৃত্বের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘ভুল করে থাকলে মানুষের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিন।’ অলিহন্ডা এবং চাঁচল, এই দুই গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্যদের উদ্দেশে বিধায়ক বলেন, ‘ভুল করে থাকলে মানুষের কাছে গিয়ে ক্ষমা চেয়ে নিন।মানুষের পাশে থাকুন। মানুষের হয়ে কাজ করুন। মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে সমস্যা শুনুন। দরকার পড়লে ক্ষমা চেয়ে নিন।’

এদিকে, বিধায়কের এই মন্তব্যকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছে বিতর্ক। আসলে গতকাল রবিবার চাঁচল বিধানসভার কুশিদা এলাকায় দিদির দূত কর্মসূচিতে গিয়ে এলাকাবাসীর বিক্ষোভের মুখে তৃণমূল বিধায়ক নীহার রঞ্জন ঘোষ। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় ব্যাপক দুর্নীতি এবং স্বজনপোষণের অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ দেখান গ্রামবাসীরা। সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই আজ চাঁচল বিধানসভার অলিহন্ডা  অঞ্চলে দিদির দূত কর্মসূচিতে যান নীহার রঞ্জন ঘোষ। সেখানে তিনি বিক্ষোভের মুখে না পড়লেও, গতকালের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এলাকার পঞ্চায়েত প্রধান এবং জনপ্রতিনিধিদের ক্ষমা চাওয়ার নিদান দেন বিধায়ক। তবে, রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, এই ধরনের বিক্ষোভ, রাজ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে এই ধরনের বিক্ষোভ স্বাভাবিকভাবেই শাসকদলকে অস্বস্তিতে ফেলবে।

এদিকে, এই ঘটনা প্রসঙ্গে, অলিহন্ডা গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য আফসার আলি বলেন, ‘আমাদের বিধায়ক পঞ্চায়েত সদস্য এবং প্রধানকে নিয়ে বৈঠক করেন। সেখানে বিধায়ক নির্দেশ দিয়েছেন, পঞ্চায়েতের কোনও সদস্য বা প্রধান যেন তাঁদের সংশ্লিষ্ট এলাকার মানুষের কাছে গিয়ে ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়ে নেন।’ তিনি আরও বলেন যে, ‘কাজ করতে গেলে, মানুষ মাত্রই ভুল হয়। আমাদের যদি ভুল হয়ে থাকে, তাহলে মানুষের কাছে ক্ষমা চাইব।’