মাথার কাছে মোবাইল রেখে ঘুমানো কি উচিত! জেনে নিন কি বলছেন বিশেষজ্ঞরা

মাথার কাছে মোবাইল রেখে ঘুমানো কি উচিত! জেনে নিন কি বলছেন বিশেষজ্ঞরা
মাথার কাছে মোবাইল রেখে ঘুমানো কি উচিত! জেনে নিন কি বলছেন বিশেষজ্ঞরা

বর্তমান সময়ে পড়াশোনা থেকে কাজকর্ম মোবাইল ছাড়া সবই অচল। মোবাইল ফোন মানুষের দৈনন্দিন জীবনের সঙ্গী হয়ে উঠেছে। কিন্তু জানেন কি, মোবাইল ফোন এত ব্যবহারের ফলে ক্ষতি হচ্ছে আপনার শরীরে! বর্তমানে প্রায় সব মোবাইল ফোনেই ব্যবহৃত হয় লিথিয়াম-আয়ন বা লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি। এই ব্যাটারি থেকে সাধারণ অবস্থায় প্রায় ১০০টির বেশি গ্যাস নির্গত হয়, যেগুলো মানব শরীরের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর হয়ে উঠতে পারে। এই সমস্ত গ্যাসের মধ্যে রয়েছে কার্বন মনোক্সাইডের মতো বিষাক্ত গ্যাসও। এই কার্বন মনোক্সাইড গ্যাস যদি অতিরিক্ত মাত্রায় শরীরে প্রবেশ করে তাহলে মানুষের মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে।

গবেষকদের মতে, সাধারণভাবে মোবাইলের ব্যবহৃত ব্যাটারি থেকে যে পরিমাণ গ্যাস নির্গত হয় তা প্রাণঘাতী হয়না। তবে বিষয়টি সম্পর্কে মোবাইল গ্রাহকদের সচেতনতা অবশ্যই দরকার আছে। এবং এই বিষয়ে অবগত থাকাও দরকার। অনেকেই আবার রাতে ঘুমানোর সময় মোবাইল ফোন মাথার কাছে রেখে ঘুমায়। যে কারণে এই মোবাইলের প্রভাবে তাদের শরীরে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। মোবাইলের ব্যাটারি থেকে নির্গত এই সকল গ্যাসের প্রভাবে চোখ, নাক ও গলা জ্বলার মতো সমস্যাই দেখা দিতে পারে। আপনি যদি এসব সমস্যার সম্মুখীন হন তো মোবাইল ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।

আবার যারা রাত্রে মাথার কাছে মোবাইল ফোন চার্জে লাগিয়ে ঘুমায়, তাদের শরীরে ক্ষতির সম্ভাবনা বেশি হয়। তাই রাতে ঘুমানোর সময় চেষ্টা করুন মোবাইল মাথা থেকে দূরে রেখে ঘুমানোর। আর যদি চার্জে লাগিয়ে রাখেন তো চেষ্টা করুন রুমের একটি জানালা খোলা রাখতে বা জানালার কাছে মোবাইল রাখতে।

জেনে রাখা ভালো যে শুধু রাত্রেই নয়, মোবাইলের কাছে থাকা দিনের যে কোনো সময়েই ক্ষতিকর। এবং মোবাইল বা ট্যাবের ব্যাটারি যদি আবার নিম্নমানের প্রযুক্তির হয়, তাহলে তা থেকে নির্গত গ্যাসের পরিমাণ অনেকটাই বেশি হয় আর সেটি শারীরিক ক্ষতির সম্ভাবনাও বাড়িয়ে দেয়। গবেষকদের মতে, যেসব মোবাইল বা ট্যাবলেটের ব্যাটারি চার্জিং-এর সময়ে গরম হয়ে যায়, সেগুলির ক্ষতিকর হয় শরীরের পক্ষে। তাই সাবধান হোন সতর্ক থাকুন সুস্থ থাকুন।