WT20: অক্ষরে অক্ষরে মিলল তেন্ডুলকরের ভবিষ্যদ্বাণী! শচীন-বন্দনায় মেতে ভক্তরা

WT20: অক্ষরে অক্ষরে মিলল তেন্ডুলকরের ভবিষ্যদ্বাণী! শচীন-বন্দনায় মেতে ভক্তরা
WT20: অক্ষরে অক্ষরে মিলল তেন্ডুলকরের ভবিষ্যদ্বাণী! শচীন-বন্দনায় মেতে ভক্তরা

তাঁকে বলা হয় ‘গড অফ ক্রিকেট’ অর্থাৎ ক্রিকেটের ঈশ্বর! আর ঈশ্বর নাকি ভবিষ্যৎ দেখতে পান বলেই সকলের ধারণা। সে ধারণাকেই সত্যি করে দিলেন তিনি৷ টি-২০ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে অজি-পাক লড়াইয়ের আগে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন ক্রিকেট ঈশ্বর শচীন তেন্ডুলকর। যা মিলে গেল অক্ষরে অক্ষরে! ঈশ্বরের কথা সত্যি না হয়ে আর যায় কোথায়!

ঠিক কী বলেছিলেন ‘মাস্টার ব্লাস্টার’? অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান লড়াইয়ের আগেই শচীন একটি ভিডিওতে বলেছিলেন, অজি ক্যাপ্টেন অ্যারন ফিঞ্চ ও পাক পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদির মধ্যে কড়া লড়াই হবে। ফিঞ্চ ইনিংসের শুরুর দিকেই পেসারদের লাইনে খেলতে যাবেন। তার ফলস্বরূপ, এলবিডব্লু (LBW) নয়তো ক্লিন বোল্ড (Bowled) হবেন। আর বৃহস্পতিবারের ম্যাচে ঠিক সেই কথাই হুবহু মিলে গেল।

এদিন অ্যারন ফিঞ্চ ওপেন করতে নামলে শাহিন আফ্রিদির হাতে বল তুলে দেন পাক অধিনায়ক বাবর আজম। আর ম্যাচের ৩ নম্বর বলেই আউট হন ফিঞ্চ। শাহিনের ছোঁড়া বলের লাইনে আড়াআড়ি খেলতে গিয়ে LBW হন তিনি। একেবারে খালি হাতে শূন্য রানেই প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয় তাঁকে। অর্থাৎ ঠিক যেমনটা বলেছিলেন শচীন, সেরকমভাবেই আউট হন ফিঞ্চ। এরপরই শচীন-বন্দনায় মেতে ওঠেন অগণিত ভক্ত। ক্রিকেট ঈশ্বর সত্যি যেন ভবিষ্যৎ দেখতে পান, এমন প্রশংসাও ভেসে আসে।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবারের দ্বিতীয় সেমিফাইনালের আগে দুই দলই ছিল দারুণ জায়গায়। তবে পাকিস্তান যেন কিছুটা এগিয়েই ছিল৷ গ্রুপ লিগে পরপর ৫ ম্যাচ জিতে লিগ টেবিলের টপার হয়ে সেমিতে খেলতে নেমেছিলেন বাবর আজমরা। অন্যদিকে ৫ ম্যাচের মধ্যে অস্ট্রেলিয়া জিতেছিল ৪ ম্যাচ। ফলে শেষ চারের লড়াই বেশ হাড্ডাহাড্ডি হওয়ারই সম্ভাবনা ছিল৷ আর বাস্তবে হলও ঠিক তাই। তবে জোর লড়াই শেষে জয়ের হাসি হাসলেন অজিরাই। পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারিয়ে পৌঁছে গেলেন ফাইনালে। রবিবার নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপ ফাইনাল খেলবে অস্ট্রেলিয়া।