রবিবার, ০২ অক্টোবর, ২০২২

SSKM-এর উডর্বান ওয়ার্ডে ভর্তি অনুব্রত মণ্ডল! এই ওয়ার্ডে ভর্তি হতে কত খরচ জানেন কি?

চৈত্রী আদক

প্রকাশিত: এপ্রিল ৭, ২০২২, ১১:৩১ এএম | আপডেট: এপ্রিল ৭, ২০২২, ১১:৩১ এএম

SSKM-এর উডর্বান ওয়ার্ডে ভর্তি অনুব্রত মণ্ডল! এই ওয়ার্ডে ভর্তি হতে কত খরচ জানেন কি?
SSKM-এর উডর্বান ওয়ার্ডে ভর্তি অনুব্রত মণ্ডল! এই ওয়ার্ডে ভর্তি হতে কত খরচ জানেন কি?

বংনিউজ২৪×৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ এসএসকেএমের উডবার্ন ওয়ার্ড নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে কৌতূহলের কমতি নেই। ইদানিংকালে প্রায়শই উডবার্ন ওয়ার্ডের নাম সকলের কানে আসে। কারণ রাজ্যের একাধিক নেতাদের বারবার এসএসকেএমের এই ব্লকে ভর্তি হতে দেখা গিয়েছে। ব্রিটিশ আমলে তৈরি উডবার্ন ব্লকে সাধারণত ভিআইপিদের চিকিৎসা করানো হয়। তবে বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষেরাও ভর্তি হতে পারেন উডবার্ন ব্লকে।

গত বুধবার বীরভূমের জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের সিবিআই দফতর নিজাম প্যালেস হাজিরা দেওয়ার কথা ছিল। তবে সেখানে হাজিরা না দিয়ে শারীরিক অসুস্থতার কারণে তিনি এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি হন। লক্ষ্য করা যায় অনুব্রত উডবার্ন ব্লকের সাড়ে ১২ নম্বর কেবিনে ভর্তি হয়েছেন। কিন্তু বারবার শাসক দলের নেতারা এই উডবার্ন ব্লকেই ভর্তি হন কেন? কী এমন বিশেষত্ব আছে এই ওয়ার্ডের? এই নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই সকলের মনে একাধিক প্রশ্ন ঘোরাফেরা করে।

এসএসকেএম হাসপাতালে বিভিন্ন ব্লকের মধ্যে অন্যতম হল উডবার্ন ব্লক। তিনতলার এই ব্লকের একতলা সাধারণ চিকিৎসার রোগীদের জন্য রাখা হয়েছে। আর দোতলা এবং তিন তলায় রয়েছে কেবিনগুলি। দোতলার কেবিনগুলি সেন্ট্রাল এসি যুক্ত। কেবিনগুলির কোনোটিতে রয়েছে সিঙ্গেল বেড আবার কোনোটিতে রয়েছে ডবল বেড।

এই বিশেষ ওয়ার্ডের প্রতিটি কেবিনই লাক্সারি কেবিন। তবে কেবল নেতা-মন্ত্রীরাই নন, চিকিৎসকের অনুমতিতে যে কোনও মানুষই এই কেবিনে থাকতে পারেন। বেড প্রতি প্রতিদিনের খরচ ২ থেকে ৪ হাজার টাকা। তবে খাওয়া-দাওয়া এবং ওষুধ খরচ প্রত্যেকের ক্ষেত্রে আলাদা। এই ব্লকে চিকিৎসা করাতে হলে ডাক্তার পিছু আলাদা করে কোনো খরচ দিতে হয়না।

উডবার্ন ওয়ার্ডের কেবিনে ভর্তি হতে হলে রোগীকে প্রথমে আউটডোর কিংবা এমার্জেন্সিতে গিয়ে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হয়। চিকিৎসক যদি অনুমোদন দেন তবেই এই ব্লকের কোনও কেবিনে ভর্তি হওয়া যায়। এক্ষেত্রে উল্লেখ্য এই ওয়ার্ডের কেবিনগুলিতে কোনওরকম এমার্জেন্সি চিকিৎসার ব্যবস্থা নেই। প্রয়োজনানুযায়ী এই ওয়ার্ডের জুনিয়র ডাক্তার অথবা নার্সরা চিকিৎসকদের ডেকে পাঠান। চিকিৎসকরা যদি মনে করেন কোনও রোগীর শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক নয় অর্থাৎ তার হঠাৎ করে খারাপ কিছু হওয়ার সম্ভাবনা নেই, একমাত্র তখনই এই ওয়ার্ডে ভর্তি হওয়ার অনুমোদন দেন চিকিৎসকেরা।