সোমবার, ১৫ এপ্রিল, ২০২৪

সাতটি অস্ত্র দিয়ে টুকরো টুকরো করেছেন প্রেমিকাকে! শ্বাসরোধের পর প্রথম কেটেছিলেন কোন অঙ্গ? জানালেন আফতাব

মৌসুমী

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৩, ২০২২, ০২:৫৮ পিএম | আপডেট: ডিসেম্বর ৩, ২০২২, ০৮:৫৮ পিএম

সাতটি অস্ত্র দিয়ে টুকরো টুকরো করেছেন প্রেমিকাকে! শ্বাসরোধের পর প্রথম কেটেছিলেন কোন অঙ্গ? জানালেন আফতাব
সাতটি অস্ত্র দিয়ে টুকরো টুকরো করেছেন প্রেমিকাকে! শ্বাসরোধের পর প্রথম কেটেছিলেন কোন অঙ্গ? জানালেন আফতাব

শ্রদ্ধা ওয়াকার হত্যাকান্ডে ফের বিস্ফোরক তথ্য। প্রেমিকাকে হত্যা করার জন্য চাইনিজ ছুরি কিনে নিয়ে এসেছিলেন তার লিভিং পার্টনার আফতাব আমিন। এমনই তথ্য উঠে এসেছে জেরায়।

জেরার মুখে আফতাব জানিয়েছে, মোট সাতটি অস্ত্র ব্যবহার করেছিলেন তিনি। সেক্ষেত্রে বাথরুমে নিয়ে গিয়েই শ্রদ্ধার দেহ 35 টুকরো করেন আফতাব। এরপর মাঝে যখন ক্লান্ত বোধ করছিলেন তখন বিয়ার সিগারেট খেয়েছিলেন। এমনকি অনলাইনে খাবার অর্ডার করে নেটফ্লিক্স এই সিনেমাও দেখেছেন সেই সময়।

আফতাব নার্কো পরীক্ষাতেও জানিয়েছে সে প্রথমে শ্রদ্ধাকে গলা টিপে খুন করে। এরপর তার হাত কাটে। তারপর বাকি অংশগুলো টুকরো টুকরো করে কেটে আলাদা করে রাখে। এমনকি কোন কোন অস্ত্র সে ব্যবহার করেছিল সে বিষয়েও বিস্তারিত সে জানিয়েছে তদন্তকারীদের। অস্ত্রগুলিকে খুনের পর বিভিন্ন জায়গায় সে ফেলে এসেছিল। পুলিশ তার কথার সূত্র ধরেই সেই অস্ত্র গুলির খোঁজ করছে এখন।

বর্তমানে পুলিশ অস্ত্রগুলির পাশাপাশি সেই দোকানেরও খোঁজ করছেন, যেখান থেকে আফতাব অস্ত্রগুলি কিনেছিলেন। লিভ ইন সঙ্গী শ্রদ্ধাকে খুন ও তাঁর দেহের ৩৫ টুকরো করার পরের দিন আফতাব মেহরৌলির একটি দোকান থেকেই ৩০০ লিটারের ফ্রিজ কিনেছিলেন। সেই ফ্রিজের ভিতরেই জমিয়ে রাখতেন শ্রদ্ধার দেহ। প্রত্যেকদিন রাতে সেই দেহের টুকরোগুলি নিয়ে শহরের বিভিন্ন প্রান্তে ফেলে আসতেন তিনি।