সোমবার, ১৫ এপ্রিল, ২০২৪

অত্যাধিক ঠাণ্ডাতেও সোয়েটার পরছেন না কেন? প্রশ্নের মুখে পড়ে টি-শার্ট নিয়ে মুখ খুললেন রাহুল

আত্রেয়ী সেন

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১০, ২০২৩, ১১:৩০ এএম | আপডেট: জানুয়ারি ১০, ২০২৩, ০৫:৩৮ পিএম

অত্যাধিক ঠাণ্ডাতেও সোয়েটার পরছেন না কেন? প্রশ্নের মুখে পড়ে টি-শার্ট নিয়ে মুখ খুললেন রাহুল
অত্যাধিক ঠাণ্ডাতেও সোয়েটার পরছেন না কেন? প্রশ্নের মুখে পড়ে টি-শার্ট নিয়ে মুখ খুললেন রাহুল

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ কনকনে ঠাণ্ডায় উত্তর ভারতে শুধু একটা টি-শার্ট পরেই দিন কাটাচ্ছেন কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধী। সেই নিয়ে বিরোধীদের আক্রমণের মুখেও পড়েছেন কংগ্রেসের এই নেতা। মিথ্যা প্রচার করে টি-শার্টের তলায় শীতবস্ত্র পরছেন, রাহুলের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগও করেছেন অনেকেই। ক্রমাগত প্রশ্নের মুখে পড়ে এবার মুখ খুললেন কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি। জানালেন তাঁর শীতবস্ত্র না পরার কারণ। তাঁর স্পষ্ট বক্তব্য, যতক্ষণ না ঠাণ্ডায় তিনি কাঁপছেন, ততদিন তিনি সোয়েটার পরবেন না।

সোমবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ভারত জোড়ো যাত্রার একটি ঘটনার কথা তুলে ধরেন রাহুল গান্ধী। মধ্যপ্রদেশে শীতের মধ্যে ছেঁড়া কাপড় পড়ে কাঁপতে কাঁপতে তিনটি মেয়ে এসে কথা বলেছিল কংগ্রেস সাংসদের সঙ্গে। তাদের অবস্থা দেখেই তিনি সিদ্ধান্ত নেন, যতদিন পর্যন্ত না কাঁপুনি ধরছে, ততদিন তিনি সোয়েটার না পরেই কাটাবেন। এই মুহূর্তে কংগ্রেসের জনসংযোগ কর্মসূচি ভারত জোড়ো যাত্রা হরিয়ানায় রয়েছে। সকাল সকাল প্রচণ্ড কুয়াশার মধ্যেই পথে বেরিয়ে পড়েছেন যাত্রীরা।

তাঁর সোয়েটার না পরা প্রসঙ্গে রাহুল গান্ধী বলেন, ‘কেরল থেকে আমাদের যাত্রা শুরু করেছিলাম। তখন প্রচণ্ড গরম ছিল। মধ্যপ্রদেশে পৌঁছনোর পর ঠান্ডা বাড়তে শুরু করল। সেখানেই একদিন তিনজন বাচ্চা মেয়ে কাঁপতে কাঁপতে এসে আমার সঙ্গে কথা বলল। তারা এতই দরিদ্র যে, ছেঁড়া কাপড় পরে রয়েছে। ঠাণ্ডায় কাঁপতে থাকা তিনজনের সঙ্গে কথা বলার পরেই আমি সিদ্ধান্ত নিই, শুধুই টি শার্ট পরব।’এই ভিডিও টুইট করে রাহুল লিখেছেন, ‘টি-শার্টের মাধ্যমে শুধু এইটুকুই বলতে চাই, আপনাদের কষ্টের কিছুটা ধার নিলাম।’

উল্লেখ্য, টি- শার্ট প্রসঙ্গে এর আগেও একাধিকবার মুখ খুলেছেন রাহুল গান্ধী। কংগ্রেসের এই যাত্রার মধ্যেই তিনি বলেছিলেন, ‘আমার টি-শার্ট পরা নিয়ে আলোচনার প্রয়োজন নেই। ভারতের অসংখ্য মানুষ কেন ছেঁড়া কাপড় পরে থাকেন, তাঁদের সন্তানরা কেন শীতের মধ্যে সোয়েটার পরতে পায় না, সেই নিয়ে বরং আলোচনা হোক।’