বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই, ২০২২

বিয়ের ৩ দিন আগে আমবাগানে উদ্ধার যুবকের ঝুলন্ত দেহ! খুন নাকি অন্য কিছু?

চৈত্রী আদক | তনুজ জৈন

প্রকাশিত: জুন ২৩, ২০২২, ০৬:২৩ পিএম | আপডেট: জুন ২৩, ২০২২, ০৬:৪৬ পিএম

বিয়ের ৩ দিন আগে আমবাগানে উদ্ধার যুবকের ঝুলন্ত দেহ! খুন নাকি অন্য কিছু?
বিয়ের ৩ দিন আগে আমবাগানে উদ্ধার যুবকের ঝুলন্ত দেহ! খুন নাকি অন্য কিছু?

বংনিউজ২৪×৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ আর মাত্র তিন দিন বাকি ছিল। আগামী রবিবারই বিয়ে হওয়ার কথা। বিয়ের যাবতীয় কেনাকাটা, ব্যবস্থাপনা সব শেষ পর্যায়ে। তারই আগেই সবটা শেষ। বাড়ির পাশে একটি আমবাগান থেকে উদ্ধার হল যুবকের ঝুলন্ত মৃতদেহ। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে মালদার হরিশ্চন্দ্রপুরে। খুন নাকি আত্মহত্যা? তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

সূত্রের খবর, মৃত যুবকের নাম সাদাকাশ। মালদার হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকার রশিদাবাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত বিরুয়া আজিমপুর গ্রামের বাসিন্দা জালাল উদ্দিনের আট ছেলে। সাদাকাশ সব থেকে ছোট। আগামী ২৬ জুন, রবিবার তাঁর বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। বিয়ের সমস্ত কেনাকাটা পর্যন্ত হয়ে গিয়েছিল। এমনকি গত কালও চাঁচল থেকে বিয়ের বাজার করে নিয়ে এসেছিল সাদাকাশ। কিন্তু তার কয়েক ঘন্টার মধ্যেই যে সবটা শেষ হয়ে যাবে তা কেউ ভাবতেও পারেনি।

যুবকের পরিবারের সদস্যরা জানান, গতকাল সন্ধ্যেবেলা সাদাকাশের একটি ফোন আসে। কথা বলতে বলতেই বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান তিনি। তারপর থেকেই নিখোঁজ। বাড়ির লোক সারারাত ধরে এলাকায় খোঁজখবর চালিয়েও ছেলের কোনও খোঁজ পাননি। সকালে গ্রামের একটি আমবাগান থেকে সাদাকাশের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়।

মৃতের পরিবারের অভিযোগ, তাঁকে কেউ বা কারা খুন করে আম বাগানের গাছে টাঙিয়ে দিয়েছে। পরকীয়ার আশঙ্কাও উড়িয়ে দিচ্ছেন না তাঁরা। তাঁদের আশঙ্কা, সাদাকাশের সঙ্গে যে পাত্রীর বিয়ে ঠিক হয়েছিল তাঁর কোনও পুরনো প্রেমিক পথের কাঁটা সরাতেও এই কাণ্ড ঘটিয়ে থাকতে পারে। কারণ বাড়ির ছোট ছেলে যে আত্মহত্যা করতে পারে তা মেনে নিতে একেবারেই নারাজ পরিবারের সদস্যরা।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে সাদাকাশের দেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের উদ্দেশ্যে পাঠানো হয়েছে মালদা মেডিকেল কলেজে। মৃতের পরিবারের সদস্যরা পুলিশকে পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য আবেদন করেছেন। পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নেমেছে পুলিশ।