রবিবার, ০২ অক্টোবর, ২০২২

স্ত্রীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে লিপ্ত ভাইপো! এই ‘অপরাধে’ বেহালায় যুবককে খুন করল কাকা

আত্রেয়ী সেন

প্রকাশিত: আগস্ট ১৭, ২০২২, ০৫:৩৬ পিএম | আপডেট: আগস্ট ১৭, ২০২২, ০৫:৩৬ পিএম

স্ত্রীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে লিপ্ত ভাইপো! এই ‘অপরাধে’ বেহালায় যুবককে খুন করল কাকা
স্ত্রীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে লিপ্ত ভাইপো! এই ‘অপরাধে’ বেহালায় যুবককে খুন করল কাকা/ প্রতীকী ছবি

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ নিজের ভাইপোকে পিটিয়ে মারার অভিযোগ উঠেছে কাকার বিরুদ্ধে। এই ঘটনা ঘটেছে বেহালার সখেরবাজার এলাকায়। মৃত যুবকের নাম দেবজিৎ দাস। অভিযোগ কাকিমার সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়েছিল ভাইপো। তার জেরেই যুবককে মারধর করা হয়। পরে দেবজিৎকে অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে, তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। ঘটনায় অভিযুক্ত কাকা অর্ণব দাসকে গ্রেফতার করেছে ঠাকুরপুকুর থানার পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বেহালার সখের বাজার এলাকার বাসিন্দা মৃত যুবক দেবজিৎ দাসের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরেই অশান্তি চলছিল। নিজের স্ত্রীর সঙ্গে ভাইপোর অবৈধ সম্পর্ক ছিল বলে অভিযোগ ছিল। এই বিষয়কে কেন্দ্র করেই সমস্যা তৈরি হয়েছিল দুজনের মধ্যে। অভিযোগ কাকিমার সঙ্গে ভাইপো দেবজিৎ-এর বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক রয়েছে বলেই সন্দেহ করতেন অভিযুক্ত কাকা অর্ণব। পরিবার সূত্রে খবর, দিন কয়েক আগেই পুরীতে বেড়াতে গিয়ে ফেরার পথেই ট্রেনের মধ্যেও কাকা-ভাইপোর মধ্যে তুমুল অশান্তি হয়।

গতকাল রাতেই এই একই বিষয়কে কেন্দ্র করে দুজনের মধ্যে  অশান্তি চরমে ওঠে। দেবজিৎকে এরপর বেধড়ক মারধর করা হয় বলেই পুলিশ সূত্রে খবর। এমনকি বাঁশ-লাঠি দিয়েও মারা হয় বলেও অভিযোগ উঠেছে। এরপর গুরুতর আহত দেবজিৎকে স্থানীয় একটি বেসরকারি নার্সিংহোমে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু শেষরক্ষা করা যায়নি। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা দেবজিৎকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এদিকে, এই ঘটনায় ঠাকুরপুকুর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলা দায়ের করা হয়েছে।

অন্যদিকে, মৃত যুবক দেবজিৎ-এর মা জানিয়েছেন, ‘আমি ঘটনাস্থলে ছিলাম না। আমি জানি না, কী কারণে ওঁদের মধ্যে ঝামেলা হয়েছে। আমার ছেলে তো মারাই গেল। পড়াশুনা শেষ করে ও একটি কম্পিউটার সংস্থায় চাকরি করত। ওকে কেন এভাবে মারল জানি না। এভাবে না মেরে আমাকে একবার জানাতে পারত যে, কী গণ্ডগোল হয়েছে। তখন বিষয়টা দেখা যেত। একতরফা তো অনেক কিছু দোষ দেবেই। সে বেঁচে থাকলে আমি প্রশ্ন করতে পারতাম।’

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্বাভাবিকভাবেই এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। ঘটনায় অভিযুক্ত কাকা অর্ণব দাসকে গ্রেফতার করেছে ঠাকুরপুকুর থানার পুলিশ। তবে, এই ঘটনার নেপথ্যে অবৈধ সম্পর্ক নাকি সম্পত্তি সংক্রান্ত কোনও কারণ জড়িয়ে আছে, তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। তদন্তের স্বার্থে সবদিক খতিয়ে দেখছে পুলিশ। দেবজিৎ-এর দেহ ইতিমধ্যেই ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের এই মুহূর্তে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ।