বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই, ২০২২

কঙ্গনার ‘অভিশাপে’ই কি তবে উদ্ধব সরকারের পতন? পুরনো ভিডিও ঘিরে জল্পনা তুঙ্গে

চৈত্রী আদক

প্রকাশিত: জুন ২৩, ২০২২, ০৩:১৮ পিএম | আপডেট: জুন ২৩, ২০২২, ০৩:১৮ পিএম

কঙ্গনার ‘অভিশাপে’ই কি তবে উদ্ধব সরকারের পতন? পুরনো ভিডিও ঘিরে জল্পনা তুঙ্গে
কঙ্গনার ‘অভিশাপে’ই কি তবে উদ্ধব সরকারের পতন? পুরনো ভিডিও ঘিরে জল্পনা তুঙ্গে

বংনিউজ২৪×৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ বছর দু‍‍`য়েক আগের কথা। বেআইনি নির্মাণের অভিযোগ তুলে অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াতের মুম্বইয়ের অফিস ভেঙে গুঁড়িয়ে দিয়েছিল BMC। সেই সময় উদ্ভব ঠাকরেকে নিশানা করে সরব হয়েছিলেন অভিনেত্রী। একপ্রকার অভিশাপের সুরেই বলেছিলেন “আজ মেরা ঘর টুটা হ্যায়, কাল তেরা ঘমান্ড টুটেগা”। তবে কি অভিনেত্রীর অভিশাপেই পতনের মুখে উদ্ভব সরকার? পুরনো ভিডিও ঘিরে নেটিজেনদের মধ্যে জল্পনা তুঙ্গে।

ভিডিও বার্তায় ঠিক কী বলেছিলেন কঙ্গনা? অভিনেত্রী বলেছিলেন, “উদ্ধব ঠাকরে, ফিল্ম মাফিয়ার সঙ্গে হাত মিলিয়ে আপনি আমার উপর অনেক বড় বদলা নিয়ে ফেলেছেন বলে মনে করছেন? আজ আমার বাড়ি ভেঙেছে! কাল আপনার অহংকার ভাঙবে! সময়ের চাকা কিন্তু ঘোরে। এই কথাটা সবসময় মনে রাখা দরকার। আজ আপনার সময়। ঠিক কথা। কিন্তু, এই সময়টা সবসময় আপনার সঙ্গে থাকবে না।”

২০২০ সালের ১৪ জুন প্রয়াত হন অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত। অভিনেতার মৃত্যুর পর থেকেই বি-টাউনে নেপোটিজম বিতর্ক মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে। সেই সময় বলিউডের বেশ কিছু প্রযোজক, পরিচালক এবং নামকরা অভিনেতাকে একহাত নিয়েছিলেন কঙ্গনা। নেপোটিজমের শিকার হয়ে বহু প্রতিভাবান উঠতি অভিনেতারা অভিনয়ের সুযোগ পান না, এমনটাই অভিযোগ ছিল অভিনেত্রীর। প্রায়শই এই বিষয়ে ট্যুইট করতেন কঙ্গনা। এরই মাঝে সূত্রপাত আরও এক ঝামেলার।

আচমকাই একদিন BMC-র পক্ষ থেকে কঙ্গনার মুম্বই অফিস ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। প্রশাসন স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, ওই অফিসটি বেআইনিভাবে নির্মাণ করা হয়েছিল। সেই কারণেই প্রশাসন তা ভেঙে দিতে বাধ্য হয়েছে। এতকিছুর পরেও চুপ করে বসে থাকার পাত্রী নন কঙ্গনা। ট্যুইটে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন মহারাষ্ট্র সরকারকে। একসময় সঞ্জয় রাউতের সঙ্গেও বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েছিলেন তিনি। অভিনেত্রীর নিশানা থেকে বাদ যাননি মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ভব ঠাকরেও।

অপর একটি ভিডিওতে অভিনেত্রীকে বলতে শোনা যায়, “ভারতের ইতিহাস সাক্ষী, কেউ যদি কোনও নারীকে অপমান করে তাহলে তার পতন নির্ধারিত। রাবণ সীতাকে অপমান করেছিল এবং কৌরবরা দ্রৌপদীকে অপমান করেছিল। আমি একজন নারী হয়ে নিজের সততা নিয়েই কথা বলছি। আমি কারুর ক্ষতি করিনি। তবুও আমাকে অপমানিত হতে হয়েছে। তাই যখনই কোনও ব্যক্তি এক নারীকে অশ্রদ্ধা করবে তখনই তার পতন অবধারিত।”

বর্তমানে উদ্ভব ঠাকরের গদি একপ্রকার নড়বড়ে। সংকটে রয়েছে মহারাষ্ট্রের জোট সরকার। একনাথ শিন্ডে সহ একাধিক শিবসেনা নেতার পদ্মশিবিরে যোগদান করার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। ফলস্বরূপ মহারাষ্ট্র জোট সরকারের ভিত নড়ে গেছে বললেই চলে। এই পরিস্থিতিতে ২০২০ সালে কঙ্গনার আপলোড করা ভিডিও নতুন করে ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। নেটিজেনদের একাংশের বক্তব্য, অভিনেত্রীর অভিশাপেই উদ্ভব সরকারের আজ এই অবস্থা। অনেকে এটিকে কর্মফল বলে মনে করেছেন।